corona virus btn
corona virus btn
Loading

পাইলটের চেষ্টাতেই কোঝিকোড়ে বেঁচেছে বহু প্রাণ, দাবি এনডিআরএফ প্রধানের

পাইলটের চেষ্টাতেই কোঝিকোড়ে বেঁচেছে বহু প্রাণ, দাবি এনডিআরএফ প্রধানের
এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমান৷

ভারতীয় বাযুসেনার অবসরপ্রাপ্ত উইং কমান্ডার ছিলেন ক্যাপ্টেন সাঠে৷ এয়ার ইন্ডিয়ায় যোগ দেওয়ার আগে তিনি আইএএফ-এর এক্সপেরিমেন্টাল টেস্ট পাইলট ছিলেন তিনি৷

  • Share this:

#কোঝিকোড়:  ভুল নয়, বরং পাইলটের চেষ্টাতেই কোঝিকোড়ের দুর্ঘটনায় আরও বেশি প্রাণহানি এড়ানো সম্ভব হয়েছে৷ এমনই দাবি করলেন এনডিআরএফ-এর ডিজি এস এন প্রধান৷ তাঁর দাবি, দুর্ঘটনার আগের মুহূর্ত পর্যন্ত বিমানের গতি কমানোর একাধিক চেষ্টা করেন পাইলট দীপক বসন্ত সাঠে৷ শেষ পর্যন্ত দুর্ঘটনা এড়ানো না গেলেও বিমানের গতি কমে যাওয়ায় আরও বেশ ক্ষয়ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হয়েছে৷ এই দুর্ঘটনায় অবশ্য পাইলট এবং কো- পাইলট দু' জনেরই মৃত্যু হয়েছে৷

এনডিআরএফ-এর ডিজি বলেন, 'আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে পাইলট বিমানের গতি কমানোর একাধিক চেষ্টা করেছিলেন, যে কারণে অনেক প্রাণ বেঁচেছে৷' এর পাশাপাশি এনডিআরএফ-এর ডিজি জানিয়েছেন, বিমান দুর্ঘটনার খবর যখন এসে পৌঁছয় তখন জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা মাল্লাপ্পুরমে হওয়া বন্যা উদ্ধারকাজ চালাচ্ছিলেন৷ ফলে সেখান থেকে লোকবল এবং যন্ত্রপাতি কোঝিকোড়ে এনে উদ্ধারকাজ শুরু করা যথেষ্ট কঠিন ছিল৷ তিনি আরও বলেন, 'আমাদের ভাগ্য ভাল যে বিমানটিতে আগুন ধরে যায়নি৷ উদ্ধারকাজের শেষ পর্যায়েও আমরা সংজ্ঞাহীন অবস্থায় দুই যাত্রীকে উদ্ধার করি৷'

শুক্রবার রাতে কোঝিকোড়ের কারুইপুর বিমানবন্দরে অবতরণের সময় দুবাই থেকে আসা এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানটি রানওয়ে থেকে পিছলে খাদে গিয়ে পড়ে৷ ভয়াবহ এই বিমান দুর্ঘটনায় এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯৷

দুর্ঘটনায় মৃত পাইলট দীপক বসন্ত সাঠে ভারতীয় বায়ুসেনার প্রাক্তন কম্যান্ডার ছিলেন৷ বিমান চালানোর অভিজ্ঞতা ছিল যথেষ্ট৷ ভারতীয় বায়ুসেনার প্রাক্তন এই উইং কম্যান্ডারে ‘সোর্ড অফ অনার’ পুরস্কারও পেয়েছিলেন৷ এয়ার ফোর্স অ্যাকাডেমি থেকে পাশ করার সময়েই এই অ্যাওয়ার্ড জিতেছিলেন তিনি৷

ভারতীয় বাযুসেনার অবসরপ্রাপ্ত উইং কমান্ডার ছিলেন ক্যাপ্টেন সাঠে৷ এয়ার ইন্ডিয়ায় যোগ দেওয়ার আগে তিনি আইএএফ-এর এক্সপেরিমেন্টাল টেস্ট পাইলট ছিলেন৷ ১৯৯১ সালের এপ্রিল মাসে ভারতীয় বায়ুসেনায় যোগ দিয়েছিলেন সাঠে৷ ২০০৩ সাল পর্যন্ত এক্সপেরিমেন্টাল টেস্ট পাইলট হিসেবে কাজ করেছিলেন৷ তারপর থেকে মুম্বইয়ের বাসিন্দা ক্যাপ্টেন দীপক সাঠে এয়ার ইন্ডিয়ার যাত্রীবাহী বিমানে পাইলট হিসেবে কাজ করতেন৷ শনিবারও এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের যে বোয়িং-৭৩৭ বিমান নিয়ে তিনি কালিকটে ফিরছিলেন, সেই বিমান চালানোর যথেষ্ট অভিজ্ঞতা ছিল তাঁর৷ এর পাশাপাশি এয়ারবাস ৩১০-ও উড়িয়েছেন সাঠে৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: August 8, 2020, 2:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर