Delhi Lockdown: পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর! লকডাউনের মেয়াদ আরও ১ সপ্তাহ বাড়াতে হল দিল্লিতে

Delhi Lockdown: পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর! লকডাউনের মেয়াদ আরও ১ সপ্তাহ বাড়াতে হল দিল্লিতে

পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর! লকডাউনের মেয়াদ আরও ১ সপ্তাহ বাড়াতে হল দিল্লিতে

২৬ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন (Delhi Lockdown) ঘোষণা করেছিল দিল্লি সরকার। কিন্তু করোনা (Corona) সংক্রমণের ভয়াবহ অবস্থা দেখে আরও এক সপ্তাহ বাড়ানো হল লকডাউনের মেয়াদ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন (Delhi Lockdown) ঘোষণা করেছিল দিল্লি সরকার। কিন্তু করোনা (Corona) সংক্রমণের ভয়াবহ অবস্থা দেখে আরও এক সপ্তাহ বাড়ানো হল লকডাউনের মেয়াদ। কারণ লকডাউন চললেও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার হার এখনও উর্ধ্বমুখী। সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্য়ে আজ এই ঘোষণা করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal)। ৩ মে পর্যন্ত এই লকডাউন চলবে।

    সাংবাদিক বৈঠকে কেজরিওয়াল বলেন, শহরে করোনা ভাইরাস এখনও তার দাপট দেখাচ্ছে। জনগণের মতামত, লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো উচিত। আর তাই আরও এক সপ্তাহ লকডাউন বাড়ানো হল। তবে এই লকডাউনে কোরিয়ার সার্ভিস ও এবং স্বনির্ভরদের ছাড় দেবে সরকার। বিশেষত ইলেক্ট্রিশিয়ান, কলের মিস্ত্রি, ওয়াটার পিউরিফায়ার মেরামতকারীদের কিছু ছাড় দেওয়া হবে। ছোটদের বইয়ের দোকান এবং ফ্যানের দোকান খোলা থাকবে। এছাড়া অত্যাবশকীয় জিনিসের উপর ছাড় থাকবে।

    এই মুহূর্তে রাজধানীতে করোনা পজিটিভিটি (Corona positive) হার ৩৬ থেকে ৩৭ শতাংশ হয়ে গিয়েছে, যা আগে কখনও হয়নি বলে জানিয়েছেন কেজরিওয়াল। হত ১৯ এপ্রিল থেকে দিল্লিতে লকডাউন জারি হয়। ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত এই লকডাউন চলার কথা ছিল। গত ৬ দিন লকডাউন থাকা সত্ত্বেও করোনায় মৃতের সংখ্যা কমেনি ৷ করোনার গ্রাফ দ্রুত গতিতে উপরের দিকে বেড়েই চলেছে। আর সেই কথাই মাথায় রেখে মেয়াদ বাড়ালো কেজরিওয়াল সরকার।

    প্রসঙ্গত, গোটা দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভয়াবহ আকার নিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সব রেকর্ড (Highest Single Day Spike) চুরমার করে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ৪৯ হাজার ৬৯১ জন।দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২,৭৬৭ করোনা আক্রান্তের। মোট মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ৯২ হাজার ৩১১ । স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা যোগ করে দেশে এ দিন পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৬৯ লক্ষ ৬০ হাজার ১৭২ জন। আর আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা উর্ধমুখী হওয়ায় যেমন উদ্বেগ বেড়েছে, তেমনই চিন্তা বাড়িয়েছে অক্সিজেন, ওষুধ ও হাসপাতালে বেডের ঘাটতি।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: