corona virus btn
corona virus btn
Loading

' সন্তানের অধিকারের জন্য লড়াই চলবে, দেশে আজ উৎসবের আমেজ', আবেগে ভাসলেন নির্ভয়ার বাবা

' সন্তানের অধিকারের জন্য লড়াই চলবে, দেশে আজ উৎসবের আমেজ', আবেগে ভাসলেন নির্ভয়ার বাবা

বিচার পেল নির্ভয়া। সাত বছর তিন মাস চারদিনের মাথায় বিচার পেলেন দিল্লির ধর্ষিতা

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  বিচার পেল নির্ভয়া। সাত বছর তিন মাস চারদিনের মাথায় বিচার পেলেন দিল্লির ধর্ষিতা। শুক্রবার সকাল সাড়ে পাঁচটারর সময় তিহার জেলে নির্ভয়ার চার ধর্ষক মুকেশ সিংহ, বিনয় শর্মা, পবন গুপ্ত এবং অক্ষয় সিংহর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হল। বৃহস্পতিবার ভোররাত পর্যন্ত ফাঁসি রদের জন্যে লড়াই চালিয়ে যায় নির্ভয়ার ধর্ষকরা। কিন্তু শেষ মুহূর্তেও তাঁদের খালি হাতে ফেরায় সুপ্রিম কোর্ট। এদিন রাত তিনটের পর থেকেই তিহার জেলের সামনে ব্যানার, পোস্টার নিয়ে হাজির হয়েছিলেন বেশ কিছু মানুষ। তাঁরা ব্যানার পোস্টার নিয়ে জেলের বাইরেই আওয়াজ তুলতে শুরু করেন। ঠিক ৫.‌৩৭ মিনিটে চূড়ান্ত খবর আসে, ফাঁসি হয়ে গিয়েছে।

ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পরই জনসমক্ষে আসেন নির্ভয়ার মা-বাবা। আবেগাপ্লুত বাবা বদ্রীনাথ সিং-এর গলা বুজে আসছে তখন... ৭ বছর তিন মাস চার দিনের যুদ্ধ আজ শেষ...অবশেষে বিচার পেয়েছেন তাঁর মেয়ে, শাস্তি পেয়েছে তাঁর মেয়ের অপরাধীরা... ওই কাকভোরেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বদ্রীনাথ সিং, জানালেন, '' । আজ মহিলাদের ন্যায় বিচারের দিন। আজ দেশের সব মেয়েদের দিন। সন্তানের অধিকারের জন্য লড়াই চলবে। দেশে আজ উৎসবের আমেজ।'' আবেগে চোখে জল নির্ভয়ার মায়ের, বললেন, ‍‌‘‌আমার মেয়ের মৃত্যুর পর যে লড়াই শুরু করেছিলাম, আজ সেই লড়াইয়ের বৃত্ত সম্পূর্ণ হল। এতদিন ধরে ভারতের বিচার ব্যবস্থার নানা ধাপ পেরিয়ে একসময মনে হচ্ছিল আমার মেয়েটা বুঝি বিচার পাবে না। কিন্তু আজ আবার বিচার ব্যবস্থার প্রতি আস্থা ফিরে এল। আমার মেয়ের জন্য আমার গর্ব হয়। আমি ওকে বাঁচাতে পারিনি। ও বেঁচে থাকলে আজ হয়ত আমাকে লোকে একজন চিকিৎসকের মা হিসাবে চিনত। কিন্তু আজ পৃথিবীর লোক আমাকে নির্ভয়ার মা হিসাবে চেনে। তাই লড়াই আমি করবই। আগামী দিনেও করব। আজ আমি নির্ভয়াকে বলেছি, ওর ছবি জড়িয়ে ধরে বলেছি অনেক কথা। ওর ছবি জড়িয়ে ধরে কেঁদে বলেছি, মেয়ে আজ তুই ন্যায় বিচার পেলি। আজ আমি দেশের সমস্ত মহিলা ও নারীদের বলব, যাঁরা এই লড়াইয়ে আমাদের পাশে ছিলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় সঙ্গে ছিলেন, তাঁদের সবাইকে আমি ধন্যবাদ জানাই।’‌

Published by: Rukmini Mazumder
First published: March 20, 2020, 9:04 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर