• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বোনের সঙ্গে প্রেম! রাজধানী দিল্লিতে প্রেমিককে পিটিয়ে মারল দাদারা

বোনের সঙ্গে প্রেম! রাজধানী দিল্লিতে প্রেমিককে পিটিয়ে মারল দাদারা

প্রতীকী চিত্র

প্রতীকী চিত্র

ছেলেটির পরিবারের অভিযোগ পুলিশও প্রথম দফায় কোনও অভিযোগ নিতে চায়নি। কারণ ছেলেটির শরীরে আঘাতের কোনও চিহ্ন ছিল না। পরে তিনি মারা যেতেই টনক নড়ে।

  • Share this:

    #কলকাতা: বোনের সঙ্গে এক সদ্যযুবার গড়ে ওঠা সম্পর্ক নিয়ে আপত্তি। আর তার জেরেই নিজের বাড়ির বাইরেই ১৮ বছরের তরুণকে পিটিয়ে মারা হল। ঘটনাস্থল এবার উত্তরপ্রদেশ বা রাজস্থান নয়, খোদ রাজধানী দিল্লি। ঘটনাস্থল সিসিটিভি ফুটেজের ভিত্তিতে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

    বুধবরা সন্ধেবেলার ঘটনা। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে ওপেন লার্নিং স্কুলে পাঠরত  রাহুল রাজপুতকে তাঁর আদর্শনগরের বাড়ি থেকে ডেকে বের করে বেশ কয়েকজন অচেনামানুষ। শুরু হয় ব্যাপক মারধর। ভিড়ের মধ্যে থেকেই একজন বেরিয়ে হুঙ্কার দিয়ে বলে, "আমার বোনকে রাহুল উত্যক্ত করেছে তাই মারছি।" দলে প্রায় পাঁচজন ছিল। প্রায় আধমরা অবস্থায় তাঁকে ফেলে যায় ওরা। দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওযা হয়। তাঁকে চিকিৎসকার মৃত বলে ঘোষণা করে।

    দিল্লির ডেপুটি মুখ্য়মন্ত্রী মনীষ শিশোদিয়া বলেন, "একটি বিরাট অপরাধ ঘটে গিয়েছে। প্রত্যেক অপরাধীকে শনাক্ত করা হবে। মৃতের পরিবারকে আমরা ক্ষতিপূরণ হিসেবে দশলক্ষ টাকা দেবো। " দিল্লি পুলিশের ডেপুটি কমিশনার বিজয়ন্ত আর্য বলেন, "ছেলেটির শরীরে কোনও ক্ষত ছিল না, তলপেটে হঠাৎ আঘাত লেগে তিনি মারা যায়।"

    কিন্তু কেন মারা হল এত নৃশংস ভাবে? রাহুলের কাকু এবং পুলিশ একই যুক্তি দিচ্ছে। তাঁদের কথায়, এলাকারই একটি মেয়ের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ছিল দু'বছর ধরে। মেয়েটির পরিবার এই সম্পর্ককে সুনজরে দেখেনি। না করা সত্ত্বেও কোনও পক্ষই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে না আসতেই মেয়েটির দাদা তাঁকে 'শিক্ষা' দেওয়ার পরিকল্পনা করে। ডেকে নিয়ে যাওয়া হয় নন্দ রোড অঞ্চলে। সেখানেই চলে অবাধে মারধর।

    ছেলেটির পরিবারের অভিযোগ পুলিশও প্রথম দফায় কোনও অভিযোগ নিতে চায়নি। কারণ ছেলেটির শরীরে আঘাতের কোনও চিহ্ন ছিল না। পরে তিনি মারা যেতেই টনক নড়ে।

    Published by:Arka Deb
    First published: