Home /News /national /

Delhi: নিলামে উঠছে দিল্লির বাংলা মাধ্যম স্কুল! মমতার দ্বারস্থ প্রবাসী বাঙালিরা

Delhi: নিলামে উঠছে দিল্লির বাংলা মাধ্যম স্কুল! মমতার দ্বারস্থ প্রবাসী বাঙালিরা

দিল্লির এই বাংলা মাধ্যম স্কুলই নিলামে উঠছে৷

দিল্লির এই বাংলা মাধ্যম স্কুলই নিলামে উঠছে৷

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়া-সহ সংখ্যাটা ১৭০০। স্কুল বিক্রি হওয়ার ঘটনায় চরম দুশ্চিন্তায় পড়ুয়া, অভিভাবক এবং স্কুলের শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীরা (Delhi )।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: এতদিন বাড়ি, গাড়ি, আসবাব তো বটেই এমন কি বিখ্যাত ব্যক্তিদের পোশাকও নিলাম হতে দেখা যায়। কিন্তু, এক আজব কাণ্ড। নিলাম হতে চলেছে আসতে একটি স্কুল ! ঘটনা রাজধানী দিল্লির (Delhi) চিত্তরঞ্জন পার্কের। আগামিকাল, শুক্রবার সেখানে নিলাম হবে আস্ত একটি বাংলা মাধ্যমের সেকেন্ডারি স্কুল (Auction of Bengali Medium School in Delhi)।

আজ থেকে ৩৬ বছর আগে সেখানেই দুই একরের বেশি জমিতে গড়ে তোলা হয়েছিল "রাইসিনা বেঙ্গলি স্কুল(সেকেন্ডারি)।" যা সমগ্র উত্তর ভারতের অন্যতম একটি বাংলা মাধ্যমের স্কুল। যেখানে ক্লাস ওয়ান থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানো হয়। বর্তমানে সেই স্কুলের ৯০০ ছাত্র-ছাত্রীর ভবিষ্যৎ ঘিরে ঘোরতর অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

আরও পড়ুন: দিল্লির কলেজে বিভিন্ন পদে কর্মী নিয়োগ! জানুন আবেদনের বিস্তারিত বিবরণ!

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়া-সহ সংখ্যাটা ১৭০০। স্কুল বিক্রি হওয়ার ঘটনায় চরম দুশ্চিন্তায় পড়ুয়া, অভিভাবক এবং স্কুলের শিক্ষক-অশিক্ষক কর্মীরা। রাইসিনা বেঙ্গলি স্কুলের কর্মী চঞ্চল চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "২০০৫ সালে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক থেকে ২ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে ছিল স্কুল  কর্তৃপক্ষ। সুদে-আসলে যা এখন ৮ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। এই টাকা শোধ করতে না পারায় ঋণ আদায়কারী ট্রাইবুনাল' স্কুলসহ স্কুলের সম্পত্তি নিলামে তোলার নির্দেশ দিয়েছে। আগামী ১৪ জানুয়ারি হবে অনলাইন নিলাম।"

এ দিকে, স্কুল বিক্রি হয়ে যাচ্ছে, এই খবরে মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত ওই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী নন্দিতা চক্রবর্তী। তার কথায়, "ক্লাস ওয়ান থেকে যে স্কুলে পড়ছি, আচমকা তা উঠে যাবে ! ভাবতেই কষ্ট হচ্ছে। কেউ বা কারা ঋণখেলাপি হলে, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হোক। স্কুল বন্ধ হবে কেন? পড়ুয়াদের দোষ কোথায় ?"

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, স্বাধীনতার পরে রাজধানী দিল্লিতে গ্রেটার কৈলাস এবং কালকাজির মাঝে বেশ কিছুটা জমি বরাদ্দ করা হয়েছিল তৎকালীন উদ্বাস্তু বাঙালি কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মচারীদের জন্য। যার নাম দেওয়া হয়েছিল, "ইস্ট বেঙ্গল ডিসপ্লেসড পার্সনস অ্যাসোসিয়েশন" বা ইবিডিপি। পরে যা দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশের নামে হয়ে ওঠে "সিআর পার্ক৷"

আরও পড়ুন: কী হবে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিকের ভবিষ্যৎ? পরিকল্পনা তৈরি রাজ্যের

ইবিডিপি-র সাধারণ সম্পাদক গৌতম সেন চৌধুরী জানালেন, দিল্লি সরকারের শিক্ষা দপ্তর, মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হয়েছেন তাঁরা। তাঁর কথায়, " স্কুল নিলাম হলে সমস্যায় পড়বেন পড়ুয়াদের মতোই শিক্ষক- অশিক্ষক-কর্মচারীরাও। নিলাম বন্ধ রেখে সরকারি অনুদানে চলা স্কুলটিকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে রাজধানী দিল্লির একাধিক সংগঠন।"

মামলা গড়িয়েছে হাইকোর্টে। আইনজীবী তনুদ্ভভ সিংদেব নিউজ এইট্টিন বাংলাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, "সমগ্র বিষয়টির মধ্যে গভীর ষড়যন্ত্র রয়েছে। সরকারি জমি বন্ধক রেখে ঋণ নিয়েছে স্কুল। বেআইনিভাবে ঋণ দিয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক। দু'কোটি ঋণ সুদে-আসলে বেড়ে হয়েছে ৮ কোটি টাকা। নিলামে জমি-সহ স্কুলটির দাম ধার্য হয়েছে ৮১ কোটি টাকা। বোঝাই যাচ্ছে বিপুল অঙ্কের বাকি টাকা কারা পেতে চলেছেন।"

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Delhi

পরবর্তী খবর