• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ডেবিট কার্ড জালিয়াতি: ফেসবুক থেকে ফাঁস হচ্ছে আপনার তথ্য !

ডেবিট কার্ড জালিয়াতি: ফেসবুক থেকে ফাঁস হচ্ছে আপনার তথ্য !

দিকে দিকে কার্ড জালিয়াতি। কিন্তু এই কার্ড জালিয়াতির জন্য হ্যাকারদের ন্যূনতম যে টুকু তথ্য দরকার তা আমরাই আমাদের

দিকে দিকে কার্ড জালিয়াতি। কিন্তু এই কার্ড জালিয়াতির জন্য হ্যাকারদের ন্যূনতম যে টুকু তথ্য দরকার তা আমরাই আমাদের

দিকে দিকে কার্ড জালিয়াতি। কিন্তু এই কার্ড জালিয়াতির জন্য হ্যাকারদের ন্যূনতম যে টুকু তথ্য দরকার তা আমরাই আমাদের

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: দিকে দিকে কার্ড জালিয়াতি। কিন্তু এই কার্ড জালিয়াতির জন্য হ্যাকারদের ন্যূনতম যে টুকু তথ্য দরকার তা আমরাই আমাদের অসচেতনতায় তাদের হাতে তুলে দিচ্ছি। এমনটাই জানাচ্ছেন সাইবার অপরাধ দমন এবং আয়কর দফতরেরর কর্তা এবং বিশেষ‍ঞ্জরা। তারা বলেছেন, ফেসবুকের মতো সোস্যাল সাইট থেকে হ্যাকাররা জন্ম তারিখটি জেনে নিয়েই আপনার অ্যাকাউন্ট সাফ করে দিচ্ছে।

    হ্যাপি বার্ড ডে। শুভ জন্মদিন, many happy returns of the day. এমনরকমই নানা বয়ানে জন্মদিনে আপনার ফেসবুক ওয়াল উপচে পড়ছে। বিশেষ দিনে কাছের মানুষদের কাছ থেকে এমন অভিনন্দন আর শুভেচ্ছাবার্তা পেতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু যে জন্ম তারিখটি ফেসবুককে জানানোর জন্য আপনার ওয়াল শুভেচ্ছাবার্তা ভরে উঠেছে সেটিই আপনাকে আর্থিকভাবে সর্বস্বান্ত করার পক্ষে যথেষ্ট। আপনারই অসতর্কতায় সোস্যাল সাইটে তুলে দেওয়া তথ্য কাজে লাগাচ্ছে হ্যাকাররা। অনন্ত তেমনটাই জানাচ্ছেন সাইবার অপরাধ দমন ও আয়কর সংক্রান্ত বিশেষঞ্জরা। আপনি যদি আয়কর দাতা হন তাহলে হ্যাকারদের আরও সুবিধা। আপনার জন্ম তারিখটিকে কীভাবে কাজে লাগাচ্ছে হ্যাকাররা ? বিশেষঞ্জরা বলছেন, ১. ফেকবুক থেকে আপনার নাম ও জন্ম তারিখটি পাওয়ার পর আয়কর দফতরের সাইটে ঢুকে প্যান কার্ডের বিস্তারিত তথ্য সহজেই হাতে পেয়ে যাচ্ছে হ্যাকাররা। সেইসঙ্গে আপনার ফোন নম্বরও জেনে যাচ্ছে তারা। ২. প্যান কার্ডের তথ্য পাওয়ার পর তৈরি করা হচ্ছে বিকল্প প্যান কার্ড ৩. ফোন নম্বর পাওয়ার পর মোবাইল চুরি হয়ে গেছে এমনটা জানিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানানো হচ্ছে ৪. পুলিশের কাছে করা অভিযোগটির সাহায্য নিয়ে আপনার চালু নম্বরের একটি সিমকার্ড তোলা হচ্ছে ৫. প্যান কার্ড, ফোন নম্বর, ডেট অফ বার্থের মতো গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলি হাতে পাওয়ার পর ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিংয়ের সাহায্য নিয়ে আপনার আ্যাকাউন্টে হানা দিচ্ছে হ্যাকাররা। ৬. ব্যাঙ্কের সাইটে যাওয়ার পর forgot your option? –এ গিয়ে সহজেই পিন নম্বর চেঞ্জ করে নেওয়া হচ্ছে। এরপরই আপনার আ্যাকাউন্টটি সাফ করে দিচ্ছে হ্যাকাররা। বিশেষঞ্জরা বলছেন, মোবাইলে একধিক অ্যাপসও আপনার অজান্তেই বিপদ ডেকে আনছে। একাধিক আ্যাপস ওপেন করার জন্য ব্যক্তিগত ই-মেল প্রয়োজন হয়। এই সমস্ত ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন মেল আইডি এবং পাসওয়ার্ড চেঞ্জ না করার সুযোগ নেয় হ্যাকাররা। অনলাইন ওয়েবসাইটগুলির নিরাপত্তা ততটা জোরদার না হওয়ার জন্য হ্যাকার কাজ অনেক সহজ হয়ে যায়।

    First published: