অগ্নিগর্ভ অসম, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪

অগ্নিগর্ভ অসম, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪

নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে জনতা! পুলিশ-জনতা সংঘর্ষের জেরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪

  • Share this:

#অসম:  নাগরিকত্ব সংশোধনী নিয়ে বিক্ষোভে উত্তাল অসম ৷ নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে জনতা! পুলিশ-জনতা সংঘর্ষের জেরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪। অসমের ডিবরুগড় জেলায় বৃহস্পতিবার পুলিশ লাঠি চার্জ করে একদম বিক্ষোভকারীর উপর। গুরুতর আহত হন বছর ৩০-এর বীজেন্দ্র পাংগিং। শুক্রবার মৃত্যু হয় ডিবরুগরের কঙ্কন নগর গ্রামের বাসিন্দা বীজেন্দ্রর।

বৃহস্পতিবার গুয়াহাটিতে বিক্ষোভকারীদের হঠাতে পুলিশের ছোঁড়া গুলিতে মৃত্যু হয় দু’জনের ৷ আহত বহু৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি ছোঁড়ে পুলিশ ৷ তখনই দীপাঞ্জল দাস নামে এক আন্দোলনকারীর গুলি লাগে ৷ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে ৷ মৃত দীপাঞ্জল দাস অসমের ছয়গ্রামের বাসিন্দা ৷ পরিস্থিতি আরও অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠায় আরও ২ কলম সেনা মোতায়েন করা হয়েছে অসমে ৷

অন্যদিকে, অভিযোগ ছাবুয়ায় এক বিজেপি বিধায়ক বিনোদ হাজারিকার বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা ৷ ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও ওই এলাকায় বিজেপির আরও একটি অফিসে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় ৷

কাজ হল না প্রধানমন্ত্রীর ট্যুইটেও। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় এখনও থমথমে অসম। গুয়াহাটিতে কারফিউ ভেঙে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখালেন সাধারণ মানুষ। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কৌশল বদলাল অসম পুলিশ। একাধিক বদল করা হল পুলিশের শীর্ষ পদে। শনিবার পর্যন্ত বন্ধ ইন্টারনেট পরিষেবা। অসমের মতো মেঘালয়েও বন্ধ ইন্টারনেট ৷ রাজধানী শিলংয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি।

অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি গুয়াহাটি, ডিব্রুগড়, বরপেটা,

নলবাড়ি, জোড়হাট ও গোলাঘাটে। শোনিতপুর, তেজপুর ও বিশ্বনাথেও কারফিউ। ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধের নির্দেশ। অসমমুখী বহু রেল পরিষেবা বাতিল। উঃপূর্ব সীমান্ত রেলের ১০৬ ট্রেন বাতিল। গুয়াহাটি ও ডিব্রুগড়গামী বিমান পরিষেবাও বাতিল। পাঁচ কলাম সেনা মোতায়েন অসমে, ত্রিপুরায় তিন কলাম অসম রাইফেল জওয়ান মোতায়েন।

57f686d6073a256f0e031ea5e8716fc4

পুলিশ-এসএসবির পাহাড়দারি। গুয়াহাটির প্রতিটি রাস্তায় কড়া পাহাড়া। সাধারণ মানুষ ঘর থেকে বেরচ্ছেন না। প্রত্যেকের মনে আতঙ্ক। এরমধ্যেই কারফিউ ভেঙে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখান সাধারণ মানুষ। গুয়াহাটির লতাশীল ময়দানে জমায়েত করে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে গলা মেলান শহরবাসী।

একদিকে পুলিশ বাহিনী মুহুর্মুহু কাঁদানে গ্যাস ছুড়ছে, উলটোদিকে বিক্ষোভকারীরাও রীতিমতো প্রস্তুত হচ্ছে। যে অস্ত্রে মোদি সরকার হিন্দুদের মন জয় করতে চেয়েছিল, অসমে সেই অস্ত্রই তাঁদের কাছে উল্টো হয়ে দাঁড়াল। ‘ক্যাব আমি নামানু’। অসমের মানুষের এই স্লোগান আসলে মোদি সরকারের এনআরসি থেকে ক্যাব, প্রত্যেকটির বিরুদ্ধে।

উত্তপ্ত পরিস্থিতির মধ্যেই কৌশল বদলাল অসম পুলিশ। বদল করা হল অসমের এডিজি আইনশৃঙ্খলা এবং গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনারকে। এডিজি আইনশৃঙ্খলার পদ থেকে মুকেশ আগরওয়ালের সরিয়ে জিপি সিংকে আনা হয়েছে। গুয়াহাটির সিপি দীপক কুমারকে অপসারণ করা হয়েছে। নতুন সিপি হলেন মুন্না প্রসাদ গুপ্তা। শনিবার পর্যন্ত রাজ্যের দশ জেলাতেই বন্ধ করে দেওয়া হল ইন্টারনেট পরিষেবা।

First published: 03:06:52 PM Dec 13, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर