ডিএসপি দাভিন্দরের সঙ্গে জঙ্গিদের ১২ লক্ষ টাকায় রফা হয়েছিল! বিস্ফোরক তথ্য

ডিএসপি দাভিন্দরের সঙ্গে জঙ্গিদের ১২ লক্ষ টাকায় রফা হয়েছিল! বিস্ফোরক তথ্য
দাভিন্দর সিং

১২ লক্ষ টাকার বিনিময়ে দাভিন্দর সিং জঙ্গিদের সাহায্য করত এবং পুলিশের হাত থেকে বাঁচিয়ে নিরাপদ জায়গায় পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করত৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: জঙ্গিদের তথ্যপাচার ও সাহায্যের অভিযোগে শনিবার গ্রেফতার করা হয়েছে জম্মু-কাশ্মীরের ডেপুটি সুপার দাভিন্দর সিং৷ তাকে গ্রেফতারের পর তদন্তে আরও বিস্ফোরক তথ্য উঠে এল৷ ১২ লক্ষ টাকার বিনিময়ে দাভিন্দর সিং জঙ্গিদের সাহায্য করত এবং পুলিশের হাত থেকে বাঁচিয়ে নিরাপদ জায়গায় পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করত৷

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, দু জন হিজবুল জঙ্গি আত্মসমর্পণ করছে৷ ওই জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়ার দেখভাল সে-ই করছে বলে দাবি করেছে দাভিন্দর৷ পুলিশ জানতে পেরেছে, দাভিন্দরের এই পরিকল্পনার কথা জানেনই না পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা৷

পুলিশের জেরায় দাভিন্দর দাবি করেছে, হিজবুল মুজাহিদিন কম্যান্ডর সৈয়দ নভিদ মুস্তাক ও জঙ্গি রফি রাথারের সঙ্গে মিলে একটি আত্মসমর্পণ প্রক্রিয়ার পরিকল্পনা চালাচ্ছিল৷ এই প্রক্রিয়ায় আইনজীবী ইরফান শফি মিরও জড়িত রয়েছেন৷ মির হল প্রাক্তন আইনজীবী, অন্তত ৫ বার পাকিস্তানে যাতায়াত করেছেন৷ জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশের এক আধিকারিকের কথায়, 'দাভিন্দর আত্মসমর্পণের তত্ত্ব দিচ্ছে, কিন্তু আমরা তদন্ত করে দেখছি৷'

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ ও ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর একটি যৌথ বাহিনী এই ঘটনার তদন্ত করছে৷ সূত্রের খবর, গ্রেফতার হওয়া জঙ্গিরা দাভিন্দরের আত্মসমর্পণ তত্ত্ব খারিজ করেছে৷ সূত্রের খবর, ১২ লক্ষ টাকায় রফা হয়েছিল৷ দাভিন্দর নিজে ছিলেন গাড়িতে৷ ভেবেছিল, ডেপুটি সুপারের গাড়ি কেউ থামিয়ে তল্লাশি করবে না৷ প্রসঙ্গ, দক্ষিণ কাশ্মীরে ট্রাক ড্রাইভারের হত্যা মামলায় মূল অভিযুক্তই হল মুস্তাক নামে ওই জঙ্গি৷

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ সূত্রের খবর, জঙ্গিরা দাভিন্দরের বাড়িতেই থাকছিল৷ যে বেসরকারি অ্যাম্বাসেডরে জঙ্গি-সহ দাভিন্দরকে গ্রেফতার করা হয়েছে, সেই অ্যাম্বাসেডরটি ২০০১ সালে সংসদে হামলায় ব্যবহৃত হয়েছিল৷ এমনকী আফজল গুরুও অ্যাফিডেফিটে লিখেছিল, দিল্লিতে হামলার জন্য জঙ্গিদের সঙ্গে নিতে তাকে জোর করেছিল আফজল গুরু৷

First published: January 13, 2020, 3:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर