পুরীতে নামল বৃষ্টি, ক্রমশ উত্তাল হচ্ছে সমুদ্র

photo: News18 Bangla

  • Share this:

    #পুরী: কথা ছিল পুরীতে বসে সমুদ্রের ঢেউ গোনার। কিন্তু, পুরীর সমুদ্রে এখন যে শুধুই আতঙ্কের ঢেউ। আতঙ্কের নাম ফণী। শুক্রবার বেলা ১২টার পরেই পুরীর কাছাকাছি আছড়ে পড়ার আশঙ্কা। তার আগে থেকেই অবশ্য বাঙালির প্রিয় পুরীতে আতঙ্কের ঢেউ। বুধবার থেকেই সমুদ্রের ধারে চূড়ান্ত সতর্কতা। রেড ফ্ল্যাগ লাগিয়ে দড়ি বেঁধে দেওয়া হয়েছে। সমুদ্রে নামা নিষেধ।

    পুরীর সমুদ্র পর্যটকদের টানে। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় ফণীর আতঙ্কে সেই সমুদ্রেই নামা যাচ্ছে না। ফলে দূর থেকে দাঁড়িয়েই সমুদ্রের ঢেউ গোনা। শুধু হোটেলই খালি করা হচ্ছে না, পুরীর পেন্টাকাটা জেলে বস্তি থেকেও মৎস্যজীবীদের নিরাপদ জায়গায় সরানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে পুরী ছিল রোদ ঝলমলে। কিন্তু, একটু বেলা গড়াতেই মেঘলা। শুরু হয়ে যায় ঝিরঝিরে বৃষ্টি। কখনও ঝিরঝির। কখনও ঝমঝম। ক্রমশ উত্তাল হতে থাকে সমুদ্র৷ চারপাশে যেন আতঙ্ক। ওড়িশা সরকার আগেই সমুদ্রের কাছের হোটেলগুলি খালি করতে নির্দেশ দিয়েছে। নতুন করে বুকিংও বন্ধ। ফলে ফণীর ভয়ে মাঝপথেই পুরীকে টাটা। শীত, বর্ষা, গরম। বছরের সবসময়ই পুরীতে পর্যটকদের ভিড়। যার মধ্যে সিংহভাগই বাঙালি। এই মে মাসেও অনেকে ভিড় করেছিলেন। ইচ্ছে ছিল সমুদ্রের ধারে কয়েক দিন কাটানো। কিন্তু, কাঁটা হয়ে দাঁড়াল ফণী। বাধ্য হয়ে তাই তড়িঘড়ি ঘরে ফেরা। ঘোরার আনন্দের বদলে মনে ফণীর আতঙ্ক।
    First published: