কেন্দ্রীয় সরকারের শিক্ষক-শিক্ষিকা পদে প্রচুর নিয়োগ

কেন্দ্রীয় সরকারের শিক্ষক-শিক্ষিকা পদে প্রচুর নিয়োগ
সংগৃহীত ছবি

সেন্ট্রাল টিচার এলিজিবিটি টেস্ট (সিটিইটি)-জুলাই ২০২০-র প্রাথমিক এবং উচ্চ প্রাথমিকের জন্য দরখাস্ত গ্রহণ শুরু হয়েছে ২৪ জানুয়ারি থেকে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কেন্দ্রীয় সরকারের শিক্ষক-শিক্ষিকা পদে প্রচুর নিয়োগ। তারই আবেদনপত্র গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে। ইচ্ছুক প্রার্থীরা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। সেন্ট্রাল টিচার এলিজিবিটি টেস্ট (সিটিইটি)-জুলাই ২০২০-র প্রাথমিক (প্রাইমারি) এবং উচ্চ প্রাথমিক (আপার প্রাইমারি) জন্য দরখাস্ত গ্রহণ শুরু হয়েছে ২৪ জানুয়ারি থেকে। পরীক্ষা হবে ৫ জুলাই। ফল প্রকাশিত হবে ২৭ জুলাই। কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন স্কুল যেমন, কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়, নবোদয় বিদ্যালয়, সৈনিক স্কুল, সেন্ট্রাল টিবেটান স্কুল, দিল্লি সাবর্ডিনেট সার্ভিসের বিভিন্ন স্কুল, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির স্কুলেও প্রতিবছর বেশ কয়েক হাজার শূন্যপদে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে সিটিইটি পরীক্ষার সফল হওয়া আবশ্যিক।

সিটিইটি'র আবেদনপত্র পাওয়া যাচ্ছে অনলাইনে। ctet.nic.in-এ ক্লিক করে আবেদন করতে পারবেন ইচ্ছুক পরীক্ষার্থীরা। পরীক্ষা হবে দুটি ভাগে। প্রথম এবং দ্বিতীয় পত্র। পরীক্ষার্থীরা আলাদা আলাদা করেও দুটি পরীক্ষা দিতে পারেন চাইলে। সেক্ষেত্রে সেভাবেই আবেদন করতে হবে। একটি পেপারের জন্য দিতে হবে ১০০০ টাকা এবং দুটি পেপারের জন্য আবেদন করলে দিতে হবে ১২০০ টাকা। প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানোর জন্য প্রথম পত্র এবং ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানোর জন্য দুটি পত্রই পাশ করতে হবে পরীক্ষার্থীকে।

পরীক্ষায় ৬০ শতাংশ নম্বর পেলে সার্টিফিকেট বা শংসাপত্র দেওয়া হয় সাধারণের জন্য। সংরক্ষিতদের জন্য সেই মান ৫৫ শতাংশ। ডাক যোগে শংসাপত্র বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ওই সার্টিফিকেট ব্যবহার করা যাবে ফল প্রকাশের পর ৭ বছর পর্যন্ত। তার মধ্যে এক জন পরীক্ষার্থী যতবার খুশি এই পরীক্ষায় বসতে পারবেন, আরও ভাল স্কোরের জন্য। শিক্ষকতার চাকরিতে আবেদন করার সময় সেরা স্কোরটি ব্যবহার করতে পারবেন পরীক্ষার্থীরা। পরীক্ষা হবে ১৫০ নম্বরের।

First published: February 10, 2020, 10:19 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर