• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • মৃত্যু মিছিল অব্যাহত ! দেশে করোনায় মৃত ১৫৮৩, আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬,৭১১

মৃত্যু মিছিল অব্যাহত ! দেশে করোনায় মৃত ১৫৮৩, আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬,৭১১

এ অর্থাৎ অ্যাফেক্টেড জোন বাদে রাজ্যের সর্বত্র ২১ মে থেকে খুলবে বড় দোকান ৷ অ্যাফেক্টেড জোনে কোনও ছাড় দেওয়া হবে না। অন্য জোনগুলিতে শর্ত সাপেক্ষে রাজ্যে খুলবে সেলুন-বিউটি পার্লার ৷ সামাজিক দূরত্বের বিধি মেনে ২৭ মে থেকে শুরু হবে অটো চলাচল ৷ রাজ্যে ২১ মে থেকে আন্তঃজেলা বাস চলবে। নবান্নে এদিন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী ৷

এ অর্থাৎ অ্যাফেক্টেড জোন বাদে রাজ্যের সর্বত্র ২১ মে থেকে খুলবে বড় দোকান ৷ অ্যাফেক্টেড জোনে কোনও ছাড় দেওয়া হবে না। অন্য জোনগুলিতে শর্ত সাপেক্ষে রাজ্যে খুলবে সেলুন-বিউটি পার্লার ৷ সামাজিক দূরত্বের বিধি মেনে ২৭ মে থেকে শুরু হবে অটো চলাচল ৷ রাজ্যে ২১ মে থেকে আন্তঃজেলা বাস চলবে। নবান্নে এদিন জানালেন মুখ্যমন্ত্রী ৷

পশ্চিমবঙ্গে মৃ্ত্যু হয়েছে ৬৮ জনের, এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৪৪

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: সময়ের সঙ্গে সঙ্গে লাফিয়ে বাড়ছে ভারতের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কোনও ভাবেই রাশ টানা যাচ্ছে না আক্রান্তের সংখ্যায়। রোগের প্রকোপের সঙ্গে বাড়ছে মৃত্যুর হারও৷ আর সেই সঙ্গে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয় জাঁকিয়ে বসছে ভারতের বুকে। দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬ হাজার ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৪৬,৭১১। আর মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১৫৮৩। সোমবার একদিনে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে ৩৯০০। মৃত্যু হয়েছে ১৯৫ জনের। যা এখনও পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ।

    দেশে এক দিন আগেও যা ৩.২ শতাংশ ছিল, রাতারাতি তা বেড়ে ৩.৪ শতাংশে পৌঁছে গিয়েছে। প্রভাবিত হয়েছে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হওয়ার হারও। দেশের মধ্যে সব থেকে উদ্বেগজনক জায়গা হচ্ছে মহারাষ্ট্র, গুজরাত ও দিল্লি ৷ সরকারি হিসেবে মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ হাজার ৫৪১ আর মৃত্যু হয়েছে ৫৮৩ জনের৷ মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে গুজরাত। সেখানে মোট আক্রান্ত ৫৮০৪ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৩১৯ জনের। মৃত্যুর সংখ্যা অনুযায়ি তৃতীয় স্থানে রয়েছে মধ্যপ্রদেশ, সেখানে মৃতের সংখ্যা ১৭৬। এর পরেই রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সেখানে মৃতের সংখ্যা ১৩৩। দিল্লিতে মৃত্যু হয়েছে ৭৭ জনের, উত্তরপ্রদেশে ৫৩ আর অন্ধ্রপ্রদেশে ৩৬ জনের। তামিলনাড়ুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১। তেলেঙ্গানাতে মৃত্যু হয়েছে ২৯জনের৷

    আক্রান্তের সংখ্যায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি, সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৮৯৮। মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ুকে নিয়েও চিন্তায় আছেন স্বাস্থ্য কর্তারা। তামিলনাড়ুতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩,৫৫০। রাজাস্থানে ৩০৬১ জন আক্রান্ত, মধ্যপ্রদেশে ৩,০৪৯ জন, উত্তরপ্রদেশে ২,৮৫৯, অন্ধ্রপ্রদেশে ১৭১৭ আর পঞ্জাবে ১,২৩৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

    বাংলার করোনা পরিস্থিতিও সন্তোষজনক নয়। ৬৮ জনের মৃ্ত্যু হয়েছে এ রাজ্যে। এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৪৪। সুস্থ হয়েছেন ২৬৮ জন।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: