• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • CORONAVIRUS AFFECTED HUSBAND IN DEATH BED WIFE WANTS TO SECURE SPERM HIGH COURT GIVES PERMISSION PBD

Coronavirus: মরণাপন্ন স্বামীর বীর্য সংরক্ষণ করতে আদালতে স্ত্রীর আর্জি, যা জানাল কোর্ট...

স্ত্রী সিদ্ধান্ত নেন যে স্বামীর শুক্রাণু জমা করে রাখবেন৷ তা থেকেই পরবর্তীতে তিনি মা হতে চান৷

স্ত্রী সিদ্ধান্ত নেন যে স্বামীর শুক্রাণু জমা করে রাখবেন৷ তা থেকেই পরবর্তীতে তিনি মা হতে চান৷

  • Share this:

    #আহমেদাবাদ: স্বামীর বীর্য রক্ষার (Sperm Collect) দাবিতে আদালতে আবেদন করলেন স্ত্রী। এ বিষয়ে অনুমতি দিল আদালত (Gujarat High Court)। এই বছরের মে মাসে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন স্বামী। তখন থেকেই তিনি ভেন্টিলেটারে (Husband in Ventilator) ছিলেন। অতীতে, চিকিৎকসারা জানিয়ে দিয়েছিলেন যে ওই ব্যক্তির আয়ু রয়েছে মাত্র ৩ দিন৷ যার ফলে পরিবারের সকলে খুব হতাশ হয়ে পড়েন৷ এবং স্ত্রীও নিয়ে ফেলেন এক সিদ্ধান্ত৷ তিনি আদালতে আবেদন করেন স্বামীর শুক্রাণু (Sperm) জমা রাখার কথা৷ প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, স্ত্রী আদালতে জানান, 'আমি আমার স্বামীর বীর্য জমা রাখতে চাই, কারণ স্বামীর মৃত্যুর পরও যাতে আমি সন্তানের জন্ম দিতে সক্ষম হই৷ তবে চিকিৎসা আইনে বাধা আসছিল। আমাদের দুজনের ভালবাসার শেষ চিহ্ন হিসাবে স্বামীর শুক্রাণু জমা রাখতে চাই। আমার স্বামী করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভেন্টিলেশনে৷ তার জীবত থাকার সময় খুব কম, জানিয়েছেন চিকিৎসকরা৷' এই মর্মে আদালতের কাছে কাতর আর্তি করেন স্ত্রীষ আদালত স্ত্রীর আবেদনে শুক্রাণু নেওয়ার অনুমতি দেয়। ঘটনাটি গুজরাতের৷

    সর্বভারতীয় সংবাদপত্র দৈনিক ভাস্করের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে যে, এই ব্যক্তির বিয়ে হয় গত বছরের অক্টোবরে৷ তবে চার বছর আগে কানাডায় তাদের পরিচয় হয় এবং দু’জনে দু’জনের সংস্পর্ষে আসেন তারা৷ এরপর ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে মহিলার শ্বশুরের হার্ট অ্যাটাক হওয়ার পর তারা দেশে ফিরে আসেন৷ মে মাসে স্বামী করোনায় আক্রান্ত হন। তার ফুসফুস খুবই খারাপভাবে সংক্রামিত হওয়ার পরে সম্পূর্ণ নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন। গত দু’মাস ধরে ভেন্টিলেটারে রয়েছেন তিনি এবং তিন দিন আগে চিকিৎসকরা পরিবারকে জানিয়ে দেন যে তার স্বামীর স্বাস্থ্যের উন্নতি হওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই।

    এই খবর শোনার পরই স্ত্রী সিদ্ধান্ত নেন যে স্বামীর শুক্রাণু জমা করে রাখবেন৷ তা থেকেই পরবর্তীতে তিনি মা হতে চান৷ তবে চিকিৎসকরা জানান যে, তারস্বামীর অনুমতি ছাড়া শুক্রাণুর নমুনা নেওয়া সম্ভব নয়। হাল ছাড়েননি তিনি৷ পাশে পেয়েছেন শ্বশুরবাড়ির সকলকে৷

    স্ত্রী জানান যে, তারা সোমবার এই আবেদন করেন। মঙ্গলবার বেঞ্চের সামনে এই আবেদন পৌঁছেছে। আদালত স্ত্রীর পক্ষের রায় দেয়৷ আদালত রোগীর শুক্রাণু সংগ্রহের অনুমতি দেওয়ার পর হাসপাতালের সংরক্ষণের নির্দেশ দেয়। তবে আদালত পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত কৃত্রিম গর্ভধারণের অনুমতি দেয়নি। বৃহস্পতিবার আদালতে এ বিষয়ে শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে।

    Published by:Pooja Basu
    First published: