corona virus btn
corona virus btn
Loading

লোকসভায় অধীরের মন্তব্যে অস্বস্তিতে কংগ্রেস, অধীরের মন্তব্যে ‘ক্ষুব্ধ’ সনিয়া-রাহুল

লোকসভায় অধীরের মন্তব্যে অস্বস্তিতে কংগ্রেস, অধীরের মন্তব্যে ‘ক্ষুব্ধ’ সনিয়া-রাহুল

বিতর্কের মুখে অধীর সাফাই দিলেও, রাজনৈতিক মহল বলছে, কাশ্মীর-প্রশ্নে সেম সাইড করে ফেলেছেন বহরমপুরের সাংসদ।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কাশ্মীর কীভাবে ভারতের অভ্যন্তরীণ ইস্যু? লোকসভায় এই প্রশ্ন তুলে দলকে বিপাকে ফেললেন কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী। যার জেরে প্রকাশ্যেই অস্বস্তিতে পড়েন সনিয়া-রাহুল। কংগ্রেস কাশ্মীর ইস্যুতে রাষ্ট্রসংঘের হস্তক্ষেপ চায় বলে পালটা আক্রমণ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বিতর্কের মুখে অধীর সাফাই দিলেও, রাজনৈতিক মহল বলছে, কাশ্মীর-প্রশ্নে সেম সাইড করে ফেলেছেন বহরমপুরের সাংসদ।

বিতর্কটা ছিল ৩৭০ ধারার নিয়ে। কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা ও স্বায়ত্ত্বশাসনের প্রশ্নে। কিন্তু তাই ঘুরে দাঁড়াল কাশ্মীর নিয়ে কংগ্রেসের অবস্থানের প্রশ্নে। সৌজন্যে বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী। যিনি আবার লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতাও। মঙ্গলবার সংসদের নিম্নকক্ষে কাশ্মীর-বিল পেশ করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সেই বিতর্কে অংশ রেখে নিজেই বড়সড় বিতর্ক বাধালেন অধীর। সিমলা চুক্তি, লাহোর ঘোষণাপত্রের প্রসঙ্গ টেনে প্রশ্ন তুললেন, কাশ্মীর কীভাবে ভারতের অন্তভ্যরীণ বিষয় হতে পারে? পরে অমিত শাহ জানান, দেশের সীমানা পুনবিন্যাসে রাষ্ট্রসংঘের অনুমতির কোনও প্রয়োজন নেই।

লোকসভায় অধীর যখন কাশ্মীর নিয়ে বক্তব্য রাখছিলেন, তখন পাশেই বসে সনিয়া গান্ধি। অধীরের ঠিক পিছনে রাহুল। দলনেতার এমন মন্তব্য শুনে প্রকাশ্যেই অস্বস্তিতে পড়ে যান সনিয়া। মাথা ঘুরিয়ে রাহুলকে কিছু একটা বলতেও দেখা যায় তাঁকে।

এমনিতেই কাশ্মীর-প্রশ্নে প্রকাশ্যে দ্বিধাবিভক্ত কংগ্রেস শিবির। একদল চাইছে ৩৭০ ধারা বিলোপের বিরোধিতা করতে। অন্যদিকে জনার্দন দ্বিবেদী, মুরলী দেওরা, দীপেন্দর সিং হুডার মতো নেতা প্রকাশ্যেই কাশ্মীর প্রশ্নে বিজেপিকে সমর্থন করেছেন। এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার সকালে কৌশল-বৈঠক করেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা। ঠিক হয়, তিনশো সত্তর ধারা বিলোপের বিরোধিতাই করা হবে। কিন্তু অধীরের সেম সাইডে এখন সবই ওলট-পালট। বিতর্কের মুখে অবশ্য সাফাই দিয়েছেন অধীর।

অধীরের সাফাইয়েও থামছে না বিতর্ক। তাঁর মন্তব্যকে হাতিয়ার করেই কংগ্রেসের গায়ে দেশবিরোধী তকমা সাঁটাতে তৎপর গেরুয়া শিবির।

First published: August 7, 2019, 12:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर