Home /News /national /
Prashant Kishor | Congress: স্যাম পিত্রোদা থেকে প্রশান্ত কিশোর, কংগ্রেসে সন্দেহের চোখেই দেখা হয় 'বহিরাগত'দের!

Prashant Kishor | Congress: স্যাম পিত্রোদা থেকে প্রশান্ত কিশোর, কংগ্রেসে সন্দেহের চোখেই দেখা হয় 'বহিরাগত'দের!

কংগ্রেসের অন্দরমহলে আলোড়ন

কংগ্রেসের অন্দরমহলে আলোড়ন

Prashant Kishor | Congress: দলে যোগ দিলেও প্রশান্ত কিশোরকে অতি গুরুত্বপূর্ণ কোনও পদ দিতে রাজি নন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা৷

  • Last Updated :
  • Share this:

 রশিদ কিদওয়াই

ভোটকুশলী ছেড়ে ভারতীর রাজনীতিতে প্রত্যক্ষ ভরকেন্দ্র হয়ে ওঠার চেষ্টা চালাচ্ছেন প্রশান্ত কিশোর। আর সেই কারণে কংগ্রেসে তাঁর যোগদান এখন অনেকটাই অবশ্যম্ভাবী বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কিন্তু কংগ্রেসের অন্দরেই প্রশান্ত কিশোরকে নিয়ে আলোচনা খুব ইতিবাচক নয় বলেই সূত্রের খবর। সেক্ষেত্রে দলে যোগ দিলেও প্রশান্ত কিশোরকে অতি গুরুত্বপূর্ণ কোনও পদ দিতে রাজি নন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা৷ যদিও রাজনৈতিক মহল বলছে, কংগ্রেসে 'বহিরাগত'দের বরাবর সন্দেহের চোখে দেখা হয়। দলের হাইকম্যান্ড কখনই তাঁদের ক্ষেত্রে খুব উদারতা দেখাতে পারেন না। তা সে স্যাম পিত্রোদা হোন বা জেএম ল্যাংদোই হোন বা প্রশান্ত কিশোর।

কংগ্রেস সূত্রে খবর, প্রশান্ত কিশোর শেষ পর্যন্ত যদি সত্যিই দলে যোগ দেন, তাহলে তাঁকে কংগ্রেসের ভিতরে এবং বাইরে রাজনৈতিক সমন্বয় সাধকের দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে৷ যা দীর্ঘদিন কংগ্রেসের হয়ে করতেন সনিয়া গান্ধি ঘনিষ্ঠ আহমেদ প্যাটেল৷ তবে, কংগ্রেসের অন্দরের G-23 নেতাদের অনেকেরই প্রশান্ত কিশোর নিয়ে আপত্তি রয়েছে। যে ২৩ জন নেতা গতবছর কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধিকে চিঠি লিখে দলের আমূল পরিবর্তন চেয়েছিলেন, তাঁরা অনেকেই প্রশান্তের কংগ্রেসের অন্দরে চাইছেন না। এই নিয়ে সম্প্রতি এই ২৩ নেতা বর্ষীয়ান নেতা কপিল সিব্বলের বাড়িতে বৈঠক করেছেন বলেও জানা গিয়েছে।

বেশ কিছু তরুণ কংগ্রেস নেতা ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরকে দলে চাইছেন। পশ্চিমবঙ্গ এবং তামিলনাড়ুতে প্রশান্ত কিশোরের দক্ষতা প্রমাণিত হয়েছে সম্প্রতি। তারও আগে সেই ২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদির পরামর্শদাতা থেকে শুরু করে নীতিশ কুমারের সঙ্গ-বারবার নিজেকে প্রমাণ করেছেন প্রশান্ত কিশোর। কিন্তু কংগ্রেসের অন্দরে প্রশান্ত-'বিরোধীরা' মনে করছেন তাঁর ভোট পরিচালনা করার স্ট্র্যাটেজিকেই শুধু কাজে লাগানো উচিৎ, বড় কোন পদে নয়।

এর আগে স্যাম পিত্রোদার ক্ষেত্রেও কংগ্রেসের অন্দরের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসেছে। ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে প্রচার মনিটরিং কমিটির প্রধান হিসেবে স্যাম পিত্রোদাকে নির্বাচিত করা হলেও তাঁকে ঘিরে সংঘাত কম ছিল না কংগ্রেসে৷ বিদেশে কংগ্রেসের চেয়ারম্যান স্যাম পিত্রোদা বহু কাল ধরেই গান্ধি পরিবারের ঘনিষ্ঠ৷ রাহুল গান্ধি ব্যক্তিগত ভাবেও স্যামকে পছন্দ করেন৷ কিন্তু তাঁকেও কংগ্রেস সেভাবে ব্যবহার করতে পারল কই। যদিও বালাকোট সহ একাধিক ঘটনায় স্যাম পিত্রোদার বিতর্কিত মন্তব্য তাঁর নম্বরও কেটেছে কিছুটা।

এমন পরিস্থিতিতে প্রশান্ত কিশোর কংগ্রেসে যোগ দিলে কি পৃথক নির্বাচনী প্রচার কমিটির দায়িত্বে আসবেন নাকি, দলের বর্তমান পরিকাঠামোর মধ্যেই তাঁকে অন্তর্ভুক্ত করা হবে, তা নিয়ে আলোচনার অন্ত নেই। এর আগে ২০১৭ সালে প্রিয়ঙ্কা এবং রাহুল গান্ধী প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে কাজ করেছেন। গান্ধি পরিবারের সঙ্গে সুসম্পর্কও রয়েছে প্রশান্তের। কয়েকদিন আগে দিল্লিতে রাহুল গান্ধির বাসভবনে গিয়ে দেখাও করে আসেন পিকে। সেখানে ছিলেন সোনিয়া, প্রিয়ঙ্কারাও। তবে ২০১৭ সালে প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শ কংগ্রেস-সমাজবাদী পার্টির জোটকে জেতাতে পারেনি। তাই প্রশান্তের ক্ষমতা নিয়ে দলের অন্দরে প্রশ্ন রয়েছে অনেকেরই।

আরও পড়ুন: ত্রিপুরায় তৃণমূলের 'তুরুপের তাস'! আগামী ১৫ দিনে বদলাতে পারে বহু কিছু

গত কয়েকমাসে একাধিক বিরোধী নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রশান্ত কিশোর। অনেকেই ভাবছিলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দূত হিসেবে শরদ পাওয়ারের সঙ্গে তাঁর বৈঠকের পর তাঁর রাজনীতিতে আসার জল্পনা তুঙ্গে ওঠে। মিশন বাংলার পর তা হলে কি এ বার মিশন ২০২৪? বিরোধী পক্ষের ভোট স্ট্র্যাটেজিস্ট হিসেবে এবার মোদির বিরুদ্ধে চাল দেবেন প্রশান্ত কিশোর। আর তা কি কংগ্রেসের অন্দর থেকেই? সেটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Prashant Kishor