corona virus btn
corona virus btn
Loading

একবছরে ১৬ হাজার গুণ আয়! অমিতপুত্র জয় শাহের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

একবছরে ১৬ হাজার গুণ আয়! অমিতপুত্র জয় শাহের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ
Jay Shah

একবছরে ১৬ হাজার গুণ আয়! অমিতপুত্র জয় শাহের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

  • Share this:

 #নয়াদিল্লি: এক বছরে ১৬ হাজার গুণ আয় বেড়েছে লোকসানে চলা সংস্থার! এমনটাই নাকি ঘটেছে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের ছেলে জয় শাহের সংস্থায়।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষে জয়ের সংস্থার টার্নওভার পঞ্চাশ হাজার টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে আশি হাজার কোটি টাকা। হাতে অস্ত্র পেয়েই অমিতপুত্রের সংস্থার বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি তুলেছে কংগ্রেস। অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। সংবাদ সংস্থাটির বিরুদ্ধে পাল্টা ১০০ কোটির মামলা ঠুকেছেন জয়।

খাব না, খেতে দেবও না। ক্ষমতায় আসার আগে দুর্নীতিমুক্ত, স্বচ্ছ প্রশাসনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু, এবার তা ধাক্কা খেল। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, বিদ্যুৎগতিতে উত্থান জয় শাহের সংস্থা টেম্পলের!

- অমিত শাহের ছেলে জয় শাহের সংস্থা টেম্পল এন্টারপ্রাইজ - ২০১৪-১৫ অর্থবর্ষে ওই সংস্থার বার্ষিক টার্নওভার ছিল মাত্র ৫০ হাজার টাকা - ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষে ওই সংস্থার টার্নওভার পৌঁছেছে ৮০.৫ কোটি টাকায় - এই তথ্য মিলেছে রেজিস্ট্রার অব কোম্পানিজ থেকে - ২০১৩ ও ২০১৪ সালে ওই সংস্থাটি লোকসানেই চলছিল - ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রেও প্রভাব খাটানোর অভিযোগ উঠেছে - জয় শাহ ছাড়াও ওই সংস্থার ডিরেক্টর পদে রয়েছেন অমিত শাহের স্ত্রী সোনালও - মূলত আমদানি, রফতানি ও কৃষিপণ্যের ব্যবসা করে টেম্পল এন্টারপ্রাইজ - ২০১৬ সালে ব্যবসা বন্ধ করে দেয় টেম্পল এন্টারপ্রাইজ - ডিরেক্টরর্স রিপোর্টে বলা হয়, লোকসানে পড়ে সংস্থার পুরো সম্পত্তি নষ্ট হয়ে গিয়েছে

সোনিয়া গান্ধির জামাই রবার্ট বঢরা ও প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের ছেলে কার্তির আর্থিক দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগ নিয়ে একসময় হাতশিবিরকে ফালাফালা করেছিল বিজেপি। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমটির খবর সামনে আসতেই জয় শাহের বিজনেস মডেল নিয়ে আক্রমণ শানাচ্ছে কংগ্রেস।

Amit Shah and Jay Shah Amit Shah and Jay Shah

ট্যুইটে বিজেপিকে খোঁচা দিয়েছেন রাহুল গান্ধিও। তিনি বলেন, ‘অবশেষে নোটবন্দির ফলে লাভবান ব্যক্তিকে পাওয়া গেল। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক, গরিব মানুষ বা সাধারণ কৃষক নয়। ইনি হলেন শাহ। জয় অমিত।’

বিজেপি অবশ্য দুর্নীতির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় নেমে সংবাদ সংস্থাটির বিরুদ্ধে পালটা একশো কোটির মানহানির মামলা করেছেন জয়। কিন্তু, তির এমন জায়গায় লেগেছে যে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামতে হয়েছে খোদ রেলমন্ত্রীকে।

লোকসানে চলা একটি সংস্থার এমন বিদ্যুৎগতিতে উত্থান কীভাবে? টেম্পল এন্টারপ্রাইজ বিতর্ক বিজেপিকে কিছুটা ব্যাকফুটে ঠেলে দিল।

First published: October 9, 2017, 5:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर