corona virus btn
corona virus btn
Loading

তিন তালাক অসাংবিধানিক, ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের

তিন তালাক অসাংবিধানিক, ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের

প্রধান বিচারপতি সহ পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চ এদিন জানান, আগামী ছ’মাসের জন্য তিন তালাকে নিষেধাজ্ঞা ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ভারতে আর বৈধ নয় তিন তালাক। ঐতিহাসিক রায়ে জানাল সুপ্রিম কোর্টের সাংবিধানিক বেঞ্চ। আজ প্রধান বিচারপতি জে এস খেহরের বেঞ্চ জানিয়েছে, মুসলিম সমাজে প্রচলিত তাৎক্ষণিক তিন তালাক প্রথা অসাংবিধানিক। যদিও, এ নিয়ে ঐকমত্যে আসতে পারেনি ওই বেঞ্চ। দুই বিচারপতি তিন তালাকের স্বপক্ষে মত দেন। তিন জন ছিলেন বিপক্ষে। শেষপর্যন্ত, সংখ্যাগরিষ্ঠের মতে, অসাংবিধানিক ঘোষিত হয় তালাক-এ-বিদাত।

মুসলিম সমাজের তিন তালাক প্রথা নিয়ে চলা যাবতীয় বিতর্কে এবার ইতি টেনে দিল সুপ্রিম কোর্ট। দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর, মঙ্গলবার শীর্ষ আদালত জানাল,

- তালাক-এ-বিদাত বা তিন তালাক প্রথা বেআইনি ও অসাংবিধানিক

- ওই প্রথা সংবিধান বিরোধী - এবার থেকে বাতিল ওই প্রথা

গত ১১ মে থেকে শুরু হয় শুনানি পর্ব। টানা ছ’দিন শুনানি চলে। মঙ্গলবারও, পাঁচ বিচারপতির মধ্যে চলে ম্যারাথন আইনি যুদ্ধ। প্রধান বিচারপতি জে এস খেহর ও আরেক বিচারপতি আবদুল নাজির তিন তালাকের পক্ষে সওয়াল করেন। তাঁদের যুক্তি, ইসলামে ওই প্রথার উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু, বাকি তিন বিচারপতি বিচারপতি রোহিনটন নরিম্যান, উদয় ললিত ও জোসেফ কুরিয়েন ওই প্রথা অসাংবিধানিক বলে জানান। শেষপর্যন্ত, সংখ্যাগরিষ্ঠতার বিচারে হেরে যায় খেহর ও নাজিরের মত।

তিন তালাক প্রথায় সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপ ঠাকানোর জন্য কম চেষ্টা করেনি মুসলিম পার্সনাল ল বোর্ড। কিন্তু, শেষরক্ষা হয়নি। পরবর্তী পথ খুঁজতে আগামী ১০ সেপ্টেম্বর বৈঠকে বসছে তারা।

triple-talaq

গত ১১ মে থেকে শুরু হয় শুনানি পর্ব। টানা ছ’দিন শুনানি চলে। মঙ্গলবারও, পাঁচ বিচারপতির মধ্যে চলে ম্যারাথন আইনি যুদ্ধ। প্রধান বিচারপতি জে এস খেহর ও আরেক বিচারপতি আবদুল নাজির তিন তালাকের পক্ষে সওয়াল করেন। তাঁদের যুক্তি, ইসলামে ওই প্রথার উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু, বাকি তিন বিচারপতি বিচারপতি রোহিনটন নরিম্যান, উদয় ললিত ও জোসেফ কুরিয়েন ওই প্রথা অসাংবিধানিক বলে জানান। শেষপর্যন্ত, সংখ্যাগরিষ্ঠতার বিচারে হেরে যায় খেহর ও নাজিরের মত।

তিন তালাক প্রথায় সুপ্রিম কোর্টের হস্তক্ষেপ ঠাকানোর জন্য কম চেষ্টা করেনি মুসলিম পার্সনাল ল বোর্ড। কিন্তু, শেষরক্ষা হয়নি। পরবর্তী পথ খুঁজতে আগামী ১০ সেপ্টেম্বর বৈঠকে বসছে তারা।

First published: August 22, 2017, 3:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर