Ayodhya Verdict: স্বাধীনতার পর থেকেই মামলা-মোকদ্দমা, ঐতিহাসিক রায়ের পর ফিরে দেখা ইতিহাস

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Nov 09, 2019 05:43 PM IST
Ayodhya Verdict: স্বাধীনতার পর থেকেই মামলা-মোকদ্দমা, ঐতিহাসিক রায়ের পর ফিরে দেখা ইতিহাস
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Nov 09, 2019 05:43 PM IST

#অযোধ্যা: শুরুটা সেই পাঁচশো বছর আগে। প্রথম পানিপথ যুদ্ধের দু’বছর পর অযোধ্যায় তৈরি হয়েছিল বাবরি মসজিদ। মাঝে সরযূ নদী দিয়ে অনেক জল বয়ে গিয়েছে। মুঘল-ব্রিটিশ রাজত্বের পর স্বাধীন হয়েছে ভারত। তারপরে আরও ৭২ বছর। এতদিনে হল রায়। অযোধ্যা মামলায় ঐতিহাসিক রায় সুপ্রিম কোর্টের। মাঝে দীর্ঘ টানাপোড়েনের ইতিহাস।

বাবরির কথা মানে সেই বাবরের কথা। যার ইতিহাস প্রায় পাঁচশো বছর পুরনো।

 অযোধ্যা বৃত্তান্ত

- ১৫২৮ সালে অযোধ্যায় মসজিদের নির্মাণ করেন মুঘল সম্রাট বাবরের সেনাপতি মির বাকি

- ১৯৪৯ সাল। স্বাধীনতার দু’বছর পর মসজিদের প্রধান গম্বুজের নিচে রামমূর্তি প্রতিষ্ঠা করা হয়। কেন্দ্রের নির্দেশে তালা পড়ে মসজিদে

Loading...

- ১৯৮৬ সালে ফৈজাবাদ জেলা আদালতের রায়ে খোলা হয় মসজিদের তালা। শুরু হয় রামলালা দর্শন

- সেবছরই রায়ের বিরুদ্ধে এলাহাবাদ হাইকোর্টে আবেদন করে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড ও বাবরি মসজিদ অ্যাকশন কমিটি

- তারপর কেটে গিয়েছে পাঁচ বছর। ১৯৯১ সালে অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি অধিগ্রহণ করে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকার

- ১৯৯২ সালেই ৬ ডিসেম্বর কর সেবকদের হাতে ধ্বংস হয় বাবরি মসজিদ

- পরের বছরই বিতর্কিত জমিকে ঘিরে থাকা ৬৭. ৭০৩ একর অধিগ্রহণ করে কেন্দ্রীয় সরকার

- ২০১০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর জমি সমানভাবে তিন ভাগ করে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড, নির্মোহী আখাড়া ও রামলালাকে দেওয়ার নির্দেশ দেয় এলাহাবাদ হাইকোর্ট

- পরের বছর ৯ মে, সুপ্রিম কোর্টে স্থগিত হয়ে যায় এলাহাবাদ হাইকোর্টের রায়

- ২০১৯ সালের ৮ই জানুয়ারি, শুনানির জন্য ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ গঠন করে সুপ্রিম কোর্ট। পরে সাংবিধানিক বেঞ্চের পুনর্গঠন হয়

- চলতি বছরের ৬ই অগাস্ট থেকে শুরু হয় প্রতিদিন শুনানি

- সুপ্রিম কোর্টে টানা ৪০ দিনের শুনানি শেষ হয় ১৬ই অক্টোবর। স্থগিত রাখা হয় রায়দান

- ৯ নভেম্বর, ২০১৯ - শনিবার সুপ্রিম কোর্ট ছুটি। সেই ছুটির দিনেই অযোধ্যা নিয়ে ঐতিহাসিক রায় দিল সর্বোচ্চ আদালতের পাঁচ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চের।

First published: 05:43:21 PM Nov 09, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर