অরুণাচল প্রদেশের গা ঘেঁষেই ছুটবে চিনের বুলেট ট্রেন! সীমান্তে ভারতের চিন্তা বাড়ছে

অরুণাচল প্রদেশের গা ঘেঁষেই ছুটবে চিনের বুলেট ট্রেন! সীমান্তে ভারতের চিন্তা বাড়ছে

চিনের নিংচি থেকে তিব্বতের লাসা পর্যন্ত বুলেট ট্রেন পরিষেবা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে বেজিং।

চিনের নিংচি থেকে তিব্বতের লাসা পর্যন্ত বুলেট ট্রেন পরিষেবা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে বেজিং।

  • Share this:
    #ইটানগর: প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর কী তবে শান্তি ফিরবে না! চিনের দাপাদাপি সেদিকেই ইঙ্গিত করছে। সীমান্ত বরাবর পরিকাঠামো উন্নয়নের কাজ বেজিং আগেই শুরু করেছিল। এবার যেন সেই উদ্যোগের পালে হাওয়া লেগেছে। সীমান্তে সড়ক, সেতু, রেলপথ নির্মাণ করে ক্রমাগত ভারতের উপর চাপ বাড়াতে চাইছে চিন। এবার শোনা যাচ্ছে, বেজিং থেকে তিব্বতের লাসা পর্যন্ত বুলেট ট্রেন ছোটানোর প্রস্তুতি শুরু করেছে চিন। আর সেই বুলেট ট্রেন ছুটবে ভারতের অরুণাচল প্রদেশের গা ঘেঁষেই। চিনের বুলেট ট্রেন পরিষেবা শুরু হলে সীমান্ত বরাবর ভারতের সামরিক ব্যবস্থা কিন্তু ঢেলে সাজাতে হতে পারে। চিনের নিংচি থেকে তিব্বতের লাসা পর্যন্ত বুলেট ট্রেন পরিষেবা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে বেজিং। এই রেলপথ ৪৩৫ কিমি লম্বা। এই নিংচি আবার ভারতের অরুণাচলের থেকে মাত্র ৫০ কিমি দূরে অবস্থিত। অর্থাত্, অরুণাচল সীমন্তে ভারতের গা ঘেঁষেই চলবে চিনের বুলেট ট্রেন। এই রুটে আবার তিব্বতের প্রথম ইলেকট্রিক ট্রেন চলবে। চিনের রেল সংস্থা দাবি করেছে, এই রুটে বুলেট ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা তাদের অনেকদিনের। ২০১৪ সাল থেকে এই রুটে বুলেট ট্রেন চালানোর জন্য পরিকাঠামোর উন্নয়ন শুরু হয়েছিল। এতদিনে সেই কাজ শেষের পথে। যতদূর জানা যাচ্ছে, জুন মাস থেকেই এই রুটে ট্রেন পরিষেবা শুরু হতে পারে। ফলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ভারতের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নতুন করে সাজাতে হতে পারে। এই রুটে বুলেট ট্রেন চললে চিনের সব দিক থেকে লাভ। একে তো প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর চিন আধিপত্য রাখতে চাইছে। ফলে উত্তেজক পরিস্থিতি সৃষ্টি হলেই অরুণাচল লাগোয়া সীমান্তে কম সময়ে অনেক সেনা পাঠিয়ে দিতে পারবে বেজিং। চিন যদিও এই দাবি উড়িয়েছে। তাদের দাবি, নেহাতেই যাত্রীবাহী ট্রেনের পরিষেবা দিতেই এই রুট তৈরি করা হয়েছে। তবে প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা কিন্তু চিনের এই বুলেট ট্রেন পরিষেবা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন।
    Published by:Suman Majumder
    First published:

    লেটেস্ট খবর