দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিয়ের ১৫ বছর পরেও সন্তান হয়নি, ঘটা করে বাছুর দত্তক নিলেন উত্তরপ্রদেশের দম্পতি

বিয়ের ১৫ বছর পরেও সন্তান হয়নি, ঘটা করে বাছুর দত্তক নিলেন উত্তরপ্রদেশের দম্পতি
প্রতীকী চিত্র ।

সন্তান দত্তক নেওয়ার এই অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ৫০০ অতিথি । গোমতী নদীর তীরে নিয়ে গিয়ে পুজো দেন তাঁরা । ‘মুন্ডন’ রীতি মেনে মাথা ন্যাড়া করেন ।

  • Share this:

#বরেলি: গরুকে মায়েরই অপর রূপ মানা হয় হিন্দু ধর্মে । গরু’কে কখনও মাতা রূপে, কখনও দেবতা জ্ঞানে পুজো করেন অনেক হিন্দুরাই । কখনও আবার সে ঘরের সদস্য । উপকারী গৃহপালিত পশু হিসাবে তার কদর রয়েছে গৃহস্থের পরিবারে । কিন্তু তা বলে তাঁকে সন্তান হিসাবে দত্তক নেওয়ার ঘটনা আগে কখনও ঘটেনি ।

এমনই আজব ঘটনা ঘটল উত্তরপ্রদেশের বরেলিতে । বিয়ের ১৫ বছর অতিক্রান্ত হলেও নিঃসন্তান ছিলেন বিজয়পাল ও রাজেশ্বরীদেবী । অনেক চেষ্টা করেও সন্তান সুখ পাননি তাঁরা । অবশেষে স্বামী-স্ত্রী ঠিক করেন দত্তক নিয়ে এই শূন্যস্থান পূরণ করবেন । সন্তান দত্তক নেওয়ার এই অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রিত ছিলেন প্রায় ৫০০ অতিথি । আশেপাশে গ্রামের থেকেও লোকজন, আত্মীয়-স্বজন, পাড়া প্রতিবেশী, বন্ধু-বান্ধব সকলেই এসেছিলেন এই অনুষ্ঠানে ।

বিজয়পাল ও রাজেশ্বরী তাঁদের ছোট্ট বাছুর সন্তানের নাম দিয়েছেন লাল্টু বাবা । লাল্টু’কে গোমতী নদীর তীরে নিয়ে গিয়ে পুজো দেন তাঁরা । ‘মুন্ডন’ রীতি মেনে মাথা ন্যাড়া করেন । পুরোহিত বাবা-মা ও তাঁদের সন্তানকে আশীর্বাদ দান করেন ।

বিজয়পালের এক প্রতিবেশী রত্নেশ মিশ্র জানান, ওই দম্পতি খুবই নিসঙ্গ ছিলেন । এ বার তাঁদের মুখে হাসি ফুটবে । বেশ কিছু বছর আগে বিজয়ের বাবা-মা গত হয়েছেন । দুই বোনের বিয়ে হয়ে গিয়েছে । তাঁদের কোনও সন্তানও নেই । তাই একাকীত্বে ভুগতেন তাঁরা ।

অবশেষে তাঁরা ঠিক করেন লাল্টুকে দত্তক নেবেন । কারণ জন্মের পর থেকেই লাল্টু তাঁদের স্নেহধন্য । লাল্টুর মা’কে ছোট থেকে বড় করেছিলেন বিজয়ের বাবা । লাল্টু যখন ছোট তখন তার মা মারা যায় । এরপর থেকেই ওই বাজুরটি বিজয়পালের নয়ণের মণি । অন্যদিকে, রাজেশ্বরী দেবী বলছেন, গরুকে যদি আমরা মা ভাবতে পারি, তাহলে বাছুরকে কেন নিজের সন্তান ভাবতে পারব না?

Published by: Simli Raha
First published: December 18, 2020, 9:42 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर