কৃষক আন্দোলন শুরুর পরেই ড্রোনের মাধ্য়মে অস্ত্র পাচার শুরু করেছে পাকিস্তান, সতর্কবার্তা অমরিন্দর সিংয়ের

এক সংবাদ সংস্থার কাছে তিনি জানাচ্ছেন, ড্রোনের মাধ্যমে পাকিস্তান এদেশে অস্ত্র পাঠাচ্ছে এবং পাশাপাশি অনুপ্রবেশেরও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কৃষকদের আন্দোলন যখন থেকে শুরু হয়েছে তখন থেকেই ড্রোনের মাধ্যমে পাকিস্তান অস্ত্র পাঠানো শুরু করেছে বলে তাঁর দাবি।

এক সংবাদ সংস্থার কাছে তিনি জানাচ্ছেন, ড্রোনের মাধ্যমে পাকিস্তান এদেশে অস্ত্র পাঠাচ্ছে এবং পাশাপাশি অনুপ্রবেশেরও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কৃষকদের আন্দোলন যখন থেকে শুরু হয়েছে তখন থেকেই ড্রোনের মাধ্যমে পাকিস্তান অস্ত্র পাঠানো শুরু করেছে বলে তাঁর দাবি।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: কৃষক আন্দোলনের মধ্যেই পঞ্জাবে অশান্তি তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। কেন্দ্রকে এমনই সতর্কবার্তা দিলেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। তিনি জানাচ্ছেন, অক্টোবর থেকেই ভারতে অস্ত্র পাচারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান। আর ওই একই সময় থেকে কৃষকরাও কেন্দ্রের তিন কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে সরব হয়েছেন। সীমান্তের কাছের রাজ্যগুলিতে পাকিস্তান অশান্তি তৈরি করতে পারে, এমন সতর্কবার্তা কেন্দ্রকে অনেকদিন ধরেই দিচ্ছেন অমরিন্দর সিং।

    এক সংবাদ সংস্থার কাছে তিনি জানাচ্ছেন, ড্রোনের মাধ্যমে পাকিস্তান এদেশে অস্ত্র পাঠাচ্ছে এবং পাশাপাশি অনুপ্রবেশেরও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কৃষকদের আন্দোলন যখন থেকে শুরু হয়েছে তখন থেকেই ড্রোনের মাধ্যমে পাকিস্তান অস্ত্র পাঠানো শুরু করেছে বলে তাঁর দাবি। অস্ত্র ছাড়াও টাকা ও হেরোইনও আসছে বলে তিনি জানাচ্ছেন।

    তাঁর মতে কৃষক আন্দোলনের ফাঁকেই পাকিস্তান পঞ্জাবে এবং সীমান্ত অঞ্চলগুলিতে সমস্যা পাকানোর চেষ্টা করছে। তিনি বলছেন ভারতের দুই প্রতিবেশী দেশ অর্থাৎ পাকিস্তান ও চিন-এর সঙ্গে সম্পর্ক মোটেই ভালো নয়। চিন ও পাকিস্তান জোট বেঁধেছে। আর ভারতের সেনা বাহিনীর ২০ শতাংশ জওয়ান এখন কৃষক আন্দোলনের দিকে মনোযোগ দিচ্ছে। ফলে সীমান্তে নিরাপত্তা যাতে আলগা না হয় এবং পাকিস্তান থেকে অনুপ্রবেশ না ঘটে সেদিকে নজর দেওয়ার কথা বলছেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী।

    তিনি বলছেন, আমাদের পশ্চিম দিকে একটি শত্রুপরায়ণ দেশ রয়েছে। উত্তর দিকে রয়েছে চিন। এই দুই দেশ জোট বাঁধতে চলেছে। আর এই সীমান্ত অঞ্চলে নিযুক্ত রয়েছে দেশের সেনাবাহিনীর ২০ শতাংশ। তাঁরা যাতে মনোবল না হারায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

    তিনি আরও বলছেন, আমি কাউকে দোষ দিচ্ছি না। তদন্তকারী সংস্থা খতিয়ে দেখবে। কিন্তু আন্দোলন শুরুর পরেই কী ভাবে ড্রোনের মাধ্যমে অস্ত্র আসা শুরু হয়ে গেল। আন্দোলনের সঙ্গেই পাশাপাশি ভাবে এটি শুরু হয়েছে বলে অবাক হচ্ছি।

    তিনি বলছেন পাকিস্তান স্লিপার সেল কাজে লাগিয়েও অশান্তি তৈরি করার পরিকল্পনা করছে। এর আগেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে তাঁকে এ বিষয়ে সতর্ক করেছেন বলে তিনি জানান। অমরিন্দর সিং ২৬ জানুয়ারি লাল কেল্লা কাণ্ড নিয়েও কথা বলেন। তিনি জানান কৃষকরা কখনওই হিংসার পক্ষে নয়। তাঁর আশঙ্কা বাইরে থেকে এই আন্দোলনে লোক ঢুকে অশান্তি তৈরি করেছিল।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: