'মাথা থেকে হাঁটু পর্যন্ত পুড়ে ছাই, চেনা যাচ্ছে না,' বিহারে ফের মিলল মহিলার দেহ

'মাথা থেকে হাঁটু পর্যন্ত পুড়ে ছাই, চেনা যাচ্ছে না,' বিহারে ফের মিলল মহিলার দেহ
ছবিটি প্রতীকী

নির্জন এলাকায় উদ্ধার হল এক মহিলার দগ্ধ দেহ৷ মাত্র ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে দ্বিতীয় ঘটনা৷ ঠিক হায়দরাবাদের মতোই এই মহিলারও কাপড়-জামা পুড়ে গিয়েছে৷

  • Share this:

#সমস্তিপুর: হায়দরাবাদের নৃশংসতায় যখন দেশজুড়ে প্রতিবাদের ঝড়, তখন বুধবার আরও একটি পৈশাচিক ঘটনার সাক্ষী হল দেশ৷ এ বার অকুস্থল বিহারের সমস্তিপুর৷ নির্জন এলাকায় উদ্ধার হল এক মহিলার দগ্ধ দেহ৷ মাত্র ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে দ্বিতীয় ঘটনা৷ ঠিক হায়দরাবাদের মতোই এই মহিলারও কাপড়-জামা পুড়ে গিয়েছে৷

সমস্তিপুরের ওয়ারিসনগর এলাকায় দেহটি পাওয়া যায়৷ পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, অন্য কোথাও খুন করে দেহ জ্বালিয়ে দিয়ে ওই এলাকায় ফেলে দেওয়া হয়েছে৷ মহিলার দেহটি এতটাই পুড়ে গিয়েছে যে, কিছু চেনা যাচ্ছে না৷ ফলে মহিলার পরিচয়ও জানা যায়নি৷ ওয়ারিসনগর থানার এসআই প্রসুঞ্জয় কুমারের কথায়, 'মাথা থেকে হাঁটু পর্যন্ত পুড়ে ছাই৷ শুধু পায়ের খানিকটা অংশ আধপোড়া৷ সমস্তিপুর হাসপাতালে পাঠিয়েছি দেহ৷ যৌন নির্যাতন কি না এখনই বলা যাচ্ছে না৷ ময়নাতদন্তের পরেই বোঝা যাবে৷'

মঙ্গলবার বিহারের বক্সারে ঠিক এই রকমই একটি ঘটনা ঘটেছে৷ বিহারে একের পর এক নৃশংসতায় বিহারের মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন দিলমণি মিশ্র বলেন, 'এর থেকে বোঝা যাচ্ছে, মহিলাদের প্রতি মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের জঘন্য প্রশাসনের সংবেদনশীলতার কতটা অভাব৷'

পরপর দুটি খুনের ঘটনায় নীতিশ কুমার সরকারকে আক্রমণ করে বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও আরজেডি নেত্রী রাবড়ি দেবী বলেন, 'বিহারের বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে, কিন্তু যারা ক্ষমতায় রয়েছে, তাদের কোনও ভ্রুক্ষেপ নেই৷ কিছু তো একটা কড়া পদক্ষেপ করুক৷'

মঙ্গলবার ভোরে বক্সারের ইতাধি থানা এলাকার একটি গ্রামের মাঠে এক তরুণীর অগ্নিদগ্ধ দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। কোমর থেকে মাথা পর্যন্ত তরুণীর পুরো শরীর আগুনে ঝলসে গিয়েছিল। মাথায় গুলির গভীর ক্ষত। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

আরও ভিডিও: বিহারের সমস্তিপুরে উদ্ধার মহিলার দগ্ধ দেহ, দেখুন

First published: 04:48:54 PM Dec 04, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर