• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • দেশ
  • »
  • CENTRE VS TWITTER GOVT HITS BACK AT TWITTER SAYING STOP BEATING AROUND THE BUSH AND COMPLY WITH INDIAN LAWS SANJ

Centre Vs Twitter: চাপান-উতর তুঙ্গে! হাওয়ায় কথা বলবেন না, ট্যুইটারকে সতর্ক করল কেন্দ্র...

ট্যুইটার বনাম কেন্দ্র প্রতীকী ছবি

নয়া বিধি নিষেধ নিয়ে জোর তরজা চলছে ট্যুইটার (Twitter), হোয়াটস্যাপ (Whatsapp) বনাম কেন্দ্রের (Central Govt)। এই মন্তব্য-পাল্টা মন্তব্যে বৃহস্পতিবার রাতে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম ট্যুইটারকে (Twitter) তীব্র ভর্ৎসনা করল কেন্দ্র।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি : ডিজিটাল মাধ্যম (Digital Platform) সংক্রান্ত ভারত সরকারের নয়া  বিধি নিষেধ নিয়ে জোর তরজা চলছে ট্যুইটার (Twitter), হোয়াটস্যাপ (Whatsapp) বনাম কেন্দ্রের (Central Govt)। এই মন্তব্য-পাল্টা মন্তব্যে বৃহস্পতিবার রাতে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম ট্যুইটারকে (Twitter) তীব্র ভর্ৎসনা করল কেন্দ্র। 'ভারতে বাক্‌স্বাধীনতা নিয়ে তারা চিন্তিত।' এদিন সকালেই গ্রাহকদের গোপনীয়তা ইস্যুতে প্রশ্ন তুলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল ট্যুইটার। তারই পাল্টা প্রতিক্রিয়া দেয় সরকার। তারা জানিয়েছে, আন্দাজে কথা বলা বন্ধ করে আইন মেনে চলার চিন্তাভাবনা করুক সংস্থা।

    শুধু তাই নয়, বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্র সম্পর্কে এ ধরনের মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে ট্যুইটারকে। এক বিবৃতি জারি করে কেন্দ্রীয় বৈদ্যুতিন এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক জানিয়েছে, একটা সার্বভৌম দেশে নিজস্ব আইন এবং নীতি রয়েছে। ট্যুইটার শুধুমাত্র একটা সমাজমাধ্যম। ভারতের আইনি নীতির কাঠামো কেমন হওয়া উচিত সেটা ট্যুইটার বলতে পারে না। ট্যুইটার যে ধরনের বিবৃতি দিয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, মিথ্যা এবং ভারতের ভাবমূর্তি নষ্ট করার প্রচেষ্টা বলেও মন্তব্য করা হয় তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফে।

    কেন্দ্রের জারি করা নয়া ডিজিটাল আইন নিয়ে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ-সহ বেশি কিছু নেটমাধ্যম সরব হলেও ট্যুইটার এত দিন কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি। তবে বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলে তারা। জানিয়ে দেয়, ভারতে বাক্‌স্বাধীনতার বিষয়টি নিয়ে তারা খুব চিন্তিত। সেই সঙ্গে এ দেশে তাদের কর্মীদের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বেগে রয়েছে তারা। বিশেষ করে সোমবার যে ভাবে দিল্লি পুলিশ গুরুগ্রামে ট্যুইটার অফিসে গিয়ে অভিযান চালিয়েছে তার পর থেকেই বিষয়টি নিয়ে একটা আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। তবে নয়া বিধি নিষেধ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার পাশাপাশি কিছুটা সময় চেয়েছে ট্যুইটার কর্তৃপক্ষ। সরকারের কাছে তাদের আর্জি আরও তিন মাস সময় দেওয়া হোক এই নতুন বিধি নিষেধ লাগু করার জন্য।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: