corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে শর্ত মেনে খোলা যাবে দোকান, তবে বন্ধ থাকবে শপিং মল, নির্দেশ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

লকডাউনে শর্ত মেনে খোলা যাবে দোকান, তবে বন্ধ থাকবে শপিং মল, নির্দেশ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের

কিন্তু শপিং মল ও কোভিড ১৯ হটস্পট এলাকায় দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়নি

  • Share this:

#নয়াদিল্লি:  করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। তার মধ্যেই শর্তসাপেক্ষে দোকান খোলায় সায় দিয়েছে কেন্দ্র। পুরসভার আওতায়  থাকা সমস্ত জনবসতি, আবাসন কমপ্লেক্সের দোকান, এমনকী  স্ট্যান্ডঅ্যালোন দোকানও খোলা যাবে। তবে শপিং মল কোনওভাবেই খোলা থাকবে না। হটস্পট এলাকাগুলিতেও কোনও দোকান খোলা থাকবে না। ৫০ শতাংশ কর্মীকে নিয়ে দোকান চালাতে হবে। মানতে হবে সুরক্ষা বিধি , ব্যবহার করতে হবে মাস্ক। বেচা-কেনায় সামাজিক দূরত্ব অবশ্যই মেনে চলতে হবে। শুক্রবার গভীর রাতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়। তাতে বলা হয়, যেসব দোকান শপস অ্যান্ড এস্ট্যাবলিশমেন্ট অ্যাক্টের আওতায় রেজিস্টারড, তারা যদি পুরসভার আওতায় থাকা জনবসতি ও বাজার এলাকায় হয়, তাহলে দোকান খোলা যাবে। 

দেশজুড়ে লকডাউনের ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দোকান ছাড়া বাকি সব বন্ধ। ফলে ধাক্কা খাচ্ছে অর্থনীতি। এই পরিস্থিতিতে নির্দিষ্ট কিছু শর্ত মেনে দোকান খোলার অনুমতি দিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। শপস অ্যান্ড এস্ট্যাবলিশমেন্ট অ্যাক্টের আওতায় এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে শপিং মল ও কোভিড ১৯ হটস্পট এলাকায় দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

২০ এপ্রিল থেকে গ্রামীণ এলাকায় কারখানা খুলতে শর্তসাপেক্ষে ছাড় দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু সেই ছাড়ের মধ্যে দু’টি শর্ত নিয়ে তীব্র আপত্তি জানিয়েছেন দুর্গাপুর, আসানসোলের শিল্পপতিরা। শর্তদুটি হল  কর্মরত কোনও কর্মী করোনায় আক্রান্ত হলে কর্তৃপক্ষ বা মালিকের নামে পুলিশে এফআইআর দায়ের করা হবে। অন্য শর্তটি হল, ন্যূনতম কর্মী নিয়ে কাজ করতে হবে। যদিও বিপুল সংখক কর্মী নিয়ে উৎপাদন জারি রেখেছে দুর্গাপুর স্টিল প্লান্ট। সেখানে স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার শ্রমিক কাজ করছেন।

 
Published by: Rukmini Mazumder
First published: April 25, 2020, 10:25 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर