বর্ধমান থেকে অপহৃত ব্যক্তি উদ্ধার মালদহে, মুক্তিপণের সূত্র ধরে গ্রেফতার ৪

১ কোটি ৩০ লক্ষ টাক মুক্তিপণও দাবি করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না অপহরণকারীদের। অভিযোগ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপহৃত ওই বেসরকারি সংস্থার কর্তাদের উদ্ধার করল পুলিশ।

১ কোটি ৩০ লক্ষ টাক মুক্তিপণও দাবি করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না অপহরণকারীদের। অভিযোগ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপহৃত ওই বেসরকারি সংস্থার কর্তাদের উদ্ধার করল পুলিশ।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: বর্ধমান থেকে বেসরকারি সংস্থার পদস্থ কর্তাদের তুলে নিয়ে গিয়েছিল অপহরণকারীরা। মুক্তিপণ চাওয়া হয়েছিল প্রায় দেড় কোটি টাকা। ফোনের সূত্র ধরে মালদহের ইংলিশ বাজার থেকে গ্রেফতার করা হল অপহরণকারীদের। অপহৃত ব্যক্তিকেও উদ্ধার করেছে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ। পাওনা টাকা আদায়ের জন্যই বেসরকারি সংস্থার ওই পদস্থ কর্তাকে অপহরণ করা হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা পুলিশের। ১ কোটি ৩০ লক্ষ টাক মুক্তিপণও দাবি করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না অপহরণকারীদের। অভিযোগ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপহৃত ওই বেসরকারি সংস্থার কর্তাদের উদ্ধার করল পুলিশ। মালদহের ইংলিশবাজারের একটি হোটেল থেকে শুক্রবার অপহৃত সুজিতকুমার চক্রবর্তীকে উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে চার অপহরণকারীকেও। তাদের নাম আব্দুল হান্নান, শেখ সাজ্জাদ, সাবির আলি ও শেখ মনরুজ। মালদহ থেকে তাদের নিয়ে বর্ধমানের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ।

সুজিতবাবুর বাড়ি হুগলির মানকুন্ডুতে। বর্ধমানের রেনেসাঁয় তাঁর অফিস। পাশেই গোদা এলাকায় তিনি ঘরভাড়া নিয়ে থাকতেন। বুধবার রাতে অফিস থেকে ফেরার পথে কাজ আছে বলে নবাবহাটের কাছে অফিসের গাড়ি থেকে নেমে পড়েন তিনি। বৃহস্পতিবার বিকেলে সংস্থার প্রোজেক্ট ম্যানেজার প্রিয়তম কুমার বসুর কাছে সুজিতবাবুকে অপহরণ করা হয়েছে জানিয়ে মুক্তিপণ দাবি করে ফোন আসে। এরপরই তিনি বর্ধমান থানায় বিষয়টি জানান।

বর্ধমানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কল্যাণ সিংহরায় জানান, অপহরণের অভিযোগের ভিত্তিতে বিশেষ তদন্তকারী দল গড়া হয়। ফোন ট্র্যাক করে দেখা যায় মালদহ থেকে ওই ফোন এসেছে। বৃহস্পতিবার রাতেই মালদহে জেলা পুলিশের বিশেষ টিম রওনা দেয়। মালদহ জেলা পুলিশের সহযোগিতায় শুক্রবার ইংলিশ বাজারের একটি হোটেল থেকে উদ্ধার করা হয় সুজিতবাবুকে। গ্রেফতার করা হয় চারজনকে। ধৃতরা মালদহের মানিকচক সহ কয়েকটি থানা এলাকার বাসিন্দা। বেসরকারি সংস্থাটির ব্যবসায়িক লেনদেন সংক্রান্ত গোলমালের জেরেই এই অপহরণ বলে মনে করছে পুলিশ।

Published by:Simli Raha
First published: