• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • নোটবন্দির বর্ষপূর্তি: ১ বছর পরেও শেষ হয়নি নোট বাতিলের লাভ-ক্ষতির হিসাবনিকেশ

নোটবন্দির বর্ষপূর্তি: ১ বছর পরেও শেষ হয়নি নোট বাতিলের লাভ-ক্ষতির হিসাবনিকেশ

File Photo

File Photo

নোটবন্দির বর্ষপূর্তি: ১ বছর পরেও শেষ হয়নি নোট বাতিলের লাভ-ক্ষতির হিসাবনিকেশ

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর। দেশবাসীর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর ৫৫ মিনিটের ভাষণ। গোটা দেশ তোলপাড়। ১০০০ ও ৫০০ হাজার নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত মোদি সরকারের। এটিএম, ব্যাঙ্কেও বসে নিয়ন্ত্রণ। প্রতিশ্রুতি, মাত্র ৫০ দিনের মধ্যে কালো টাকা মুক্ত হবে অর্থনীতি। বহু ভোগান্তি, অনেক হয়রানির পর হাতে কি এল? আরবিআইয়ের রিপোর্ট জানাচ্ছে, কালো টাকা নষ্টের বদলে ব্যাঙ্কেই ফেরত এসেছে। ১ বছর পরেও নোট বাতিল নিয়ে লাভ-ক্ষতির হিসাবনিকেশ চলছেই।

    পাঁচটি লক্ষকে সামনে এসে নোট বাতিলের ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মোদি সরকার। এক বছর সেই লক্ষ্যপূরণের হিসাব কষতে বসে সবটাই গুলিয়ে যেতে বাধ্য। নোট বাতিলের হাত ধরে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ঐতিহাসিক ফল মেলার আশায় ছিল মোদি সরকার।

    কালো টাকার সিংহভাগ অন্তত ৩ লক্ষ কোটি ফেরত আসবে না সন্ত্রাসবাদীদের টাকার জোগান বন্ধ হবে কালো টাকাকে করের আওতায় আনা যাবে কয়েক হাজার কোটি জাল নোট শনাক্ত হবে ডিজিটাল লেনদেন গতি পাবে

    ৮ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে নরেন্দ্র মোদি বলেন,

    ‘‘দেশে কালো টাকা থাবা ফেলেছে ৷ একদিকে বিশ্ব অর্থনীতিতে আমরা এগিয়ে, অন্যদিকে দেশকে গ্রাস করছে দুর্নীতি ৷ আমার দেশবাসী সৎ ৷ এই দেশ দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়ছে লড়বে ৷ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধেও লড়বে দেশবাসী ৷ জঙ্গিদের টাকা কারা দিচ্ছে ? বছরের পর বছর প্রতিবেশী দেশ এই কাজ করছে ৷ জাল নোট, সন্ত্রাসবাদ দেশের কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ৷ জঙ্গিরাই জাল নোট আনছে’ ৷ তাদের সাহায্য করছে প্রতিবেশী দেশ ৷ আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি ৷ দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে আরও কড়া আইন আনা হচ্ছে ৷ ’’

    নভেম্বরের ৯ তারিখ সকাল থেকেই বদলে গিয়েছিল আম-আদমির জীবন। বাজারের পরিবর্তে ব্যাঙ্কে ছোটা - লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে দিন কাবার। এটিএমের সামনে হা-পিত্যেশ। বহু ছোট ও মাঝারি সংস্থায় চাকরি হারান বহু মানুষ। তাতে নোট বাতিল নিয়ে সমর্থনের অভাব হয়নি। ভালো কিছুর আশায় তখনও বুক বেঁধে মানুষ।

    অর্থনীতিবিদরা অবশ্য অশনি সংকেত দেখছিলেন। তর্ক-বিতর্ক, যুক্তি-পালটা যুক্তির মধ্যেই এল আরবিআইয়ের রিপোর্ট। কালো টাকার কারবারিদের হাতে হেরে ভুত মোদি সরকার। চূড়ান্ত ফ্লপ নোট বাতিল।

    - বাতিল ১৫.৪৪ লক্ষ কোটির মধ্যে ব্যাঙ্কে জমা পড়েছে ১৫.২৮ লক্ষ কোটি - অর্থাৎ ফেরত এসেছে প্রায় ৯৯ শতাংশ টাকাই - সাড়ে ১২ লক্ষ কোটির বেশি জমা পড়বে না বলে অনুমান করে কেন্দ্র - আদতে সাদা ও কালো টাকার পুরোটাই জমা পড়েছে ব্যাঙ্কে

    ব্যাঙ্কের সামনে দিনভর লাইনে দাঁড়িয়ে কি মিলল? কালো টাকা কোথায় গেল? নোট বাতিলের পর নিয়ম করে নিয়ম বদলেছিল কেন্দ্র। দাবি করা হয়, কালো টাকার কারবারিদের আটকাতেই পরিকল্পনা করে নিয়ম বদল হচ্ছে। তাতে উল্টে নতুন বিপত্তি।

    ব্যাঙ্কে বিপুল নগদে সমস্যায় ব্যাঙ্কিং শিল্প অধিকাংশ ব্যাঙ্কই সেভিংস অ্যাকাউন্টে সুদ কমিয়েছে অর্থনীতিতে কালো টাকা ঢোকায় চাপ মুদ্রাস্ফীতিতে এর দায় বহন করতে হবে আম-আদমিকে

    আর্থিক পরিসংখ্যান তো আর মিথ্যে বলে না? তাই নোট বাতিলের ১ বছরে ডিজিটাল লেনদেনের কথা বলেই অবস্থা সামলাতে হচ্ছে মোদি সরকারকে।

    First published: