বিয়ের দিনে কন্যাদানের বদলে বাবার কাঁধে উঠল মেয়ের শব, করোনার ভয়ে রোগী ভর্তি নিল না হাসপাতাল

Photo- Representative

বাড়িতে আনন্দ -উল্লাসের সঙ্গে চলছিল বিয়ের অনুষ্ঠান

  • Share this:

    #কনৌজ: করোনা আবাহে অন্য অসুস্থতায় চিকিৎসা পাচ্ছেন না রোগীরা - এই অভিযোগ একাধিক সময়ে শোনা যাচ্ছে ৷ এবার এইরকমই চিকিৎসা না পেয়ে করুণতম পরিণতি হল এক রোগিনীর ৷ একটি মেয়ে বিয়ের ঠিক আগেই অসুস্থ হয়ে পড়ে ৷ তাঁকে নিয়ে তাঁর পরিবারের সদস্যরা কনৌজ থেকে কানপুর সমস্ত হাসপাতালে যান -কিন্তু ফল মেলেনি ৷ করোনা সংক্রমিত এই সন্দেহে কোনও হাসপাতালই রোগী ভর্তি করেনি ৷ এরফলে মেয়েটি চিকিৎসা না পেয়ে মারা যায় ৷ মেয়েটির মৃত্যু হয় তাঁর বিয়ের দিনেই ৷

    যে বাবা কন্যাদান মেয়েকে নতুন সংসারে পাঠানোর স্বপ্ন দেখেছিলেন তাঁকে সেদিন মেয়ের শবদেহকে কাঁধে করে শ্মশানে পাঠাতে হল ৷ এই ঘটনায় গোটা গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ৷ কনৌজের ঠঠিয়া থানা এলাকার ভগতপুরবা গ্রামের বাসিন্দা রাজকিশোর ১৯ বছরের মেয়ে বিনীতার বিয়ে ঠিক হয়েছিল ৷ কানপুরের দেহাত জেলার রসুলাবাদের সন্তোষের ছেলে সঞ্জয়ের সঙ্গে ছিল বিয়ে ৷ দুই পরিবারেই বিয়ে নিয়ে খুশির আবহ ছিল ৷ সকাল থেকে বিয়ের বিভিন্ন অনুষ্ঠান চলার মধ্যেই হঠাৎই বিনীতা অসুস্থ বোধ করে ৷

    পরিবাবের লোক অসু্স্থ বিনীতাকে নিয়ে দ্রুত একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান ৷ কিন্তু করোনার ভয়ে সেখান থেকে তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয় ৷ এরপর একের পর এক হাসপাতাল -নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয় ৷ কিন্তু সব জায়গা থেকে নিরাশা নিয়েই ফিরতে হয় ৷ সঞ্জয় বরযাত্রী নিয়ে এসে খালি হাতেই ফিরে যেতে বাধ্য হয় ৷

    পুলিশের আধিকারিক অমরেন্দ্র প্রসাদ জানিয়েছেন মৃতদেহ পোস্টমর্টেমের জন্য নেওয়া হয়েছে ৷ আসলে কী কারণ ১৯ বছরের ওই যুবতীর মৃত্যু হল তাই খতিয়ে দেখবে পুলিশ ৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: