• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • উত্তরপ্রদেশে যোগী সরকারের বিরুদ্ধে ধর্নায় বিজেপির-ই বিধায়করা!

উত্তরপ্রদেশে যোগী সরকারের বিরুদ্ধে ধর্নায় বিজেপির-ই বিধায়করা!

বিধানসভায় ধর্নায় বিজেপি বিধায়করা

বিধানসভায় ধর্নায় বিজেপি বিধায়করা

উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়করা বেনজির ঐক্যতা দেখাচ্ছেন৷ বিধানসভার জিরো আওয়ারে তাঁদের ধর্না আন্দোলনের জেরে বিধানসভার অধিবেশন মুলতুবি হয়ে গিয়েছে৷

  • Share this:

    #লখনৌ: যোগী সরকারের বিরুদ্ধেই ধর্না বসে পড়লেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়করা৷ প্রায় ১০০ জন বিজেপি বিধায়ক যোগী আদিত্যনাথ সরকারের বিরুদ্ধে ধর্না শুরু করেছেন৷ তাঁদের অভিযোগ, সরকারে থাকা সত্ত্বেও বিধানসভায় তাঁদের বলতে দেওয়া হচ্ছে না। যোগী আদিত্যনাথ সরকারের স্বেচ্ছাচার করছে৷

    উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়করা বেনজির ঐক্যতা দেখাচ্ছেন৷ বিধানসভার জিরো আওয়ারে তাঁদের ধর্না আন্দোলনের জেরে বিধানসভার অধিবেশন মুলতুবি হয়ে গিয়েছে৷ বিধানসভায় তাঁরা স্লোগান দিতে থাকেন, 'বিধায়ক একতা জিন্দাবাদ৷'

    যোগী আদিত্যনাথ যোগী আদিত্যনাথ

    বিতর্কের শুরু এক গুর্জর বিধায়কের বিরুদ্ধে মামলা ঘিরে। লোনির বিধায়ক নন্দ কিশোর গুর্জরের বিরুদ্ধে কিছুদিন আগে একটি হেনস্থার মামলা দায়ের করেন গাজিয়াবাদের এক ফুড ইন্সপেক্টর। তাঁর অভিযোগ, একটি হোটেলের লাইসেন্স সংক্রান্ত অশান্তির জেরে নন্দকিশোর তাঁকে নিজের দফতরে ডেকে নিয়ে গিয়ে হেনস্থা করেছেন। ওই ফুড ইন্সপেক্টর বিজেপি বিধায়কের বিরুদ্ধে সচিবালয়েও নালিশ করেছেন।

    বিধানসভা মুলতুবির সময় বিধায়ক নন্দ কিশোর গুর্জরকে শান্ত করার চেষ্টাও করতে দেখা যায় পরিষদীয় মন্ত্রী সুরেশ খান্নাকে৷ গুর্জর বিধানসভায় দাঁড়িয়ে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্য বয়ান দেওয়া শুরু করেন। কিন্তু, স্পিকার তাঁকে থামিয়ে দেন। জানানো হয়, এ বিষয়ে আলোচনা করার জায়গা বিধানসভা নয়। গুর্জর তা শুনতে চাননি। তিনি নিজের বক্তব্য চালিয়ে যান। এরপরই তাঁকে একপ্রকার জোর করে থামিয়ে দেন যোগী মন্ত্রিসভার পরিষদীয় মন্ত্রী সুরেশ খান্না। তাতেই বেজায় চটে যান গুর্জর। রেগে ধর্নায় বসে পড়েন৷

    গুর্জরের ধর্নায় যোগ দেন আরও বিধায়ক৷ নির্দল বিধায়ক প্রতাপ সিং, কংগ্রেস বিধায়ক আরাধনা মিশ্র, লালজি ভার্মা (বিএসপি) সহ অনেকে৷ এই প্রথম শাসকদলের কোনও বিধায়কের জন্য বিধানসভা মুলতুবি হল৷ এমনকী স্পিকার গোটা দিনের জন্য মুলতুবি ঘোষণার পরেও বিজেপি ও বিরোধী দলের বিধায়করা আসন ছাড়তে চাননি৷ সন্ধ্যা ৭টায় সমস্যা সমাধানের আশ্বাস পেয়ে শান্ত হন বিধায়করা৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: