বার্ড ফ্লুর জেরে মাংস এবং ডিম ভাল ভাবে সেদ্ধ করে খাওয়ার পরামর্শ দিল এফএসএসএআই

বার্ড ফ্লুর জেরে মাংস এবং ডিম ভাল ভাবে সেদ্ধ করে খাওয়ার পরামর্শ দিল এফএসএসএআই
গত কয়েক সপ্তাহ ধরে চলেছে বার্ড ফ্লু আতঙ্ক ৷ দেশের অন্তত ১০টি রাজ্যে এই রোগ ছড়িয়ে পড়েছে পাখিদের মধ্যে ।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে চলেছে বার্ড ফ্লু আতঙ্ক ৷ দেশের অন্তত ১০টি রাজ্যে এই রোগ ছড়িয়ে পড়েছে পাখিদের মধ্যে ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে বার্ড ফ্লুর আতঙ্ক ৷ তাই এই বার্ড ফ্লু যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেই বিষয়টি বিবেচনায় রেখে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করল ভারতের খাদ্য সুরক্ষা ও মানদণ্ড কর্তৃপক্ষ (FSSAI)  । যেখানে বলা হয়েছে, বার্ড ফ্লু চলাকালীন এই সময়ে অর্ধ সেদ্ধ ডিম এবং সঠিক ভাবে রান্না না করা মুরগির মাংস এড়িয়ে চলতে হবে। এ ছাড়া মুরগির মাংস খোলা জায়গায় না রাখার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ভারতের খাদ্য সুরক্ষা গুণমান নির্ধারণের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষের তরফে একই সঙ্গে বলা হয়েছে, বার্ড ফ্লু নিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই।

    ইতিমধ্যে সারা দেশের প্রায় ১০টি রাজ্যে বার্ড ফ্লু-এর সন্ধান মিলেছে। দিল্লি-সহ অন্যান্য রাজ্যগুলিতে বার্ড ফ্লু সংক্রমণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এর জেরে সাধারণ মানুষের মধ্যেও ছড়িয়েছে আতঙ্ক । তবে নির্দিষ্ট পদ্ধতি অনুসরণ করে হাঁস-মুরগির ডিম এবং মাংস খেলে কোনও সমস্যার কারণ নেই বলে আশ্বাস দিয়েছে কেন্দ্র। সেই কথাতেই আবারও জোড় দিল এফএসএসএআই। বেশ কিছু নির্দেশিকা অনুসরণ করার পরামর্শ দিয়েছে এফএসএসএআই। বলা হয়েছে, এই নির্দেশিকাগুলি অনুসরণ করলেই বার্ড ফ্লু থেকে যে কোনও রকমের বিপদ এড়ানো সম্ভব হবে ৷

    এফএসএসআই- এর গাইডলাইন অনুযায়ী কি কি করবেন বা করবেন না


    ১, অর্ধ-সিদ্ধ ডিম এবং স্বল্প রান্না করা মুরগি খাওয়া যাবে না৷  কাঁচা মাংস খোলা রাখার পাশাপাশি কাঁচা মাংসের সাথে সরাসরি স্পর্শ করা উচিৎ নয়।

    ২. সংক্রামিত অঞ্চলে পাখি সরাসরি ছোঁয়া উচিত নয় ৷  খালি হাতে মরা পাখিদের স্পর্শ করা এড়াতে হবে এবং কাঁচা মুরগি ধোয়ার সময় গ্লাভস্ পড়তে হবে।

    ৩. বার্ড ফ্লু সংক্রামিত অঞ্চলগুলি থেকে ডিম / হাঁস-মুরগির মাংস ক্রয় করা যাবে না এবং সংক্রমিত অঞ্চলে পোলট্রি বিক্রি এড়াতে হবে।

    ৪. কাঁচা মাংস নিয়ে কাজ করবেন এমন লোকেদের গ্লাভস, মাস্ক পরতে হবে এবং বিশেষত কাঁচা হাঁস-মুরগি এবং ডিমগুলি ধরার আগে এবং পরে জল এবং সাবান দিয়ে তাদের হাত সঠিকভাবে ধুতে হবে।

    ৫. গাইডলাইন অনুসারে, কাঁচা মাংসের সংস্পর্শে থাকা সমস্ত বাসনগুলি ধুয়ে জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

    ৬. দু’টি পাখি কাটার মধ্যে ছুরিগুলি এবং বোর্ডগুলি পরিষ্কার ও স্যানিটাইজ করতে হবে৷ এবং পাখিদের সমস্ত বর্জ্যপদার্থ সঠিকভাবে পরিষ্কার করতে হবে।

    ৭. বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লুএইচও) বলে দিয়েছে যে হাঁস-মুরগির মাংস এবং ডিম খাওয়া নিরাপদ এবং রান্না করা খাবারের মাধ্যমে এই রোগটি মানুষের মধ্যে সংক্রমণ হতে পারে এমন কোনও তথ্য প্রমাণিত হয়নি।

    প্রসঙ্গত, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে চলেছে বার্ড ফ্লু আতঙ্ক ৷ এর মধ্যেই হরিয়ানায় মৃত্যু হয়েছে কয়েক হাজার পাখির। সেখানকার কোহুন্ড এলাকায় কৈলাশ পোল্ট্রি এবং ওম পোল্ট্রি ফার্মের পরে এখন রাওয়াল পোল্ট্রি ফার্মে প্রায় ২০ হাজার মুরগির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে।

    পোল্ট্রি ফার্মের মালিকরা এই খবর জানানোর পর থেকেই তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। তাঁরা অভিযোগ করেছেন, সরকারের এই বিভাগের টিম শুধু পরিদর্শন করেই চলে যান এবং পাখিদের রক্ষায় কোনও পদক্ষেপ নেন না। রাওয়াল পোল্ট্রি ফার্মের মালিক মদল লাল জানান, তাঁদের খামারে প্রায় ৫৫ হাজার মুরগি রয়েছে। যার মধ্যে ২০ হাজার মুরগি মারা গিয়েছে।

    Published by:Simli Dasgupta
    First published: