দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিমল গুরুংকে নিয়ে কথাই হয়নি! মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে দাবি বিনয় তামাংয়ের

বিমল গুরুংকে নিয়ে কথাই হয়নি! মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে দাবি বিনয় তামাংয়ের
বিমল গুরুং-কে নিয়ে ফের উত্তপ্ত পাহাড়৷ Photo-File/PTI

গুরুং প্রকাশ্য আসার পরই ফের অশান্তির সম্ভাবনা মাথাচাড়া দেয় পাহাড়ে৷ গুরুং পন্থী এবং বিরোধীরা মিছিল পাল্টা মিছিল শুরু করেন৷

  • Share this:

#কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে বিমল গুরুংকে নিয়ে কোনও আলোচনাই হয়নি৷ নবান্নে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর এমনই দাবি করলেন জিটিএ প্রধান এবং গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতা বিনয় তামাং৷ তাঁর দাবি, শুধুমাত্র পাহাড়ের শান্তি কীভাবে বজায় রাখা যায়, তা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁদের আলোচনা হয়েছে৷ বিনয় তামাং ছাড়াও এ দিনের বৈঠকে হাজির ছিলেন অনীত থাপা৷ অন্যদিকে রাজ্যের তরফে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও বৈঠকে হাজির ছিলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সহ রাজ্য প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা৷ বৈঠকের শেষে অবশ্য বিনয় তামাং দাবি করেছেন, এ দিনের আলোচনা সদর্থক হয়েছে৷

দীর্ঘ দিন গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর পঞ্চমীর দিন আচমকাই কলকাতায় হাজির হন বিমল গুরুং৷ বিজেপি-র সঙ্গ ত্যাগ করে তৃণমূলের প্রতি বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দেন তিনি৷ ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান বলে দাবি করেন গুরুং৷ তাঁর এই দাবির পরে তৃণমূলের তরফেও ট্যুইট করে গুরুংয়ের অবস্থানকে স্বাগত জানানো হয়৷ ফলে পাহাড়ের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা বেড়েছিল৷

গুরুং প্রকাশ্য আসার পরই ফের অশান্তির সম্ভাবনা মাথাচাড়া দেয় পাহাড়ে৷ গুরুং পন্থী এবং বিরোধীরা মিছিল পাল্টা মিছিল শুরু করেন৷ জিটিএ প্রধান বিনয় তামাং এবং তাঁর অনুগামীরা সাফ জানিয়ে দেন, কোনও অবস্থাতেই পাহাড়ে ঢুকতে দেওয়া হবে না৷ জটিলতা এড়াতে এ দিন নবান্নে বিনয় তামাং, অনীত থাপাদের বৈঠকে ডাকেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

আশা করা হয়েছিল, গুরুংয়ের প্রত্যাবর্তন নিয়েই এ দিনের বৈঠকে রাজ্য প্রশাসনের শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে মোর্চা নেতাদের আলোচনা হবে৷ যদিও বৈঠক সদর্থক হয়েছে বলে দাবি করেও বিনয় তামাং দাবি করেন, আলোচনায় বিমল গুরুংয়ের নাম পর্যন্ত ওঠেনি৷ পাহাড়ে গত তিন বছর যে শান্তি বজায় রয়েছে, তা কীভাবে ধরে রাখা যায়, কীভাবে পাহাড়ের আরও উন্নতি করা যায়, সেই সমস্ত বিষয় নিয়েই আলোচনা হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিনয় তামাং৷ তাঁর কথায়, 'তিন বছর ধরে কোনও বনধ, খুন, অশান্তি, হিংসার ঘটনা ঘটেনি দার্জিলিংয়ে৷ গোটা উত্তরবঙ্গ খুশি রয়েছে৷ লকডাউনের পরেও দার্জিলিংয়ে হাজার হাজার পর্যটক আসছেন৷ আমরা চাই পাহাড়ে পর্যটক আসুক, দার্জিলিং শান্ত থাকুক৷ কারণ পর্যটনই প্রধান শিল্প৷'

এ দিনও তিনি দাবি করেন, বিমল গুরুং- রোশন গিরি ক্লোজড চ্যাপ্টার৷ জিটিএ প্রধান বলেন, 'বিমল গুরুংয়ের বিষয়টি বিচারাধীন রয়েছে৷ তাঁর বিরুদ্ধে ১৬৭টি মামলা রয়েছে, তিনি ইউএপিএ আইনে ঘোষিত অপরাধী৷ আমাদের তো বিচার ব্যবস্থাকে সম্মান জানাতে হবে৷ আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নয়৷ আমরাও জেল খেটে এসেছি, আদালতকে সম্মান করি৷ বিমল গুরুং তো আদালতে ধরাই দেয়নি৷ কাল থেকে তো বলছি, বিমল গুরুং- রোশন গিরি আমাদের সিলেবাসে নেই৷ ভবিষ্যতেও বিমল গুরুং, রোশন গিরির সঙ্গে প্রশাসনিক-রাজনৈতিক কোনও স্তরে সমঝোতায় যাব না৷'

বিমল গুরুং সমর্থন জানানোর পর তৃণমূলের তরফে যে ট্যুইট করা হয়, তাকেও গুরুত্ব দিতে নারাজ বিনয় তামাং৷ তাঁর দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গুরুং-কে নিয়ে কিছু বলেননি৷ তৃণমূলের প্রথম সারির কোনও নেতাও গুরুং-কে সমর্থন জানিয়ে প্রকাশ্যে বক্তব্য রাখেননি৷ ফলে রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর তাঁরা খুশি বলেই জানিয়েছেন বিনয় তামাং৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 3, 2020, 6:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर