বিজেপির সঙ্গে গাঁটবন্ধন, এর বদলে নীতীশের জেডিইউয়ের প্রাপ্তি কী কী জানেন?

বিজেপির সঙ্গে গাঁটবন্ধন, এর বদলে নীতীশের জেডিইউয়ের প্রাপ্তি কী কী জানেন?

বিজেপির সঙ্গে গাঁটবন্ধন, এর বদলে নীতীশের জেডিইউয়ের প্রাপ্তি কী জানেন?

  • Share this:

 #নয়াদিল্লি: ফের এনডিএ শিবিরে নাম লেখানোর পুরস্কার পেতে চলেছে নীতীশের, জনতা দল ইউনাইটেড। আসন্ন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার রদবদলে ক্যাবিনেট মন্ত্রী হতে পারেন জেডিইউ সাংসদ কেসি ত্যাগী। একটি রাষ্ট্রমন্ত্রীর পদও পাবে জেডিইউ। ১৫ অগাস্টের পর যে কোনও দিন হতে পারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় রদবদল।

বিহারের কুর্সি ধরে রাখতে রাতারাতি বন্ধু-বদল। চার বছর পর ঘর ওয়াপসি নীতীশ কুমারের। গতকাল ইস্তফার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিজেপিকে সঙ্গে নিয়ে আজ ফের মুখ্যমন্ত্রী পথে শপথ নিলেন তিনি। উপ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন সুশীল মোদি। আগামিকাল বিধানসভায় আস্থাভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠতার প্রমাণ দেবে জেডিইউ-বিজেপি জোট।

বরাবরই চমকে সিদ্ধহস্ত নীতীশ কুমার। বুধবার, তাঁর ইস্তফাতেও ছিল চমক। রাতভর চলা নাটকেও একের পর এক ইউ টার্ন। তার জেরেই বিহারে রাতারাতি পালাবদল। গদি ধরে রাখতে এবার আরজেডি-র হাত ছেড়ে এনডিএ-তেই ফিরলেন নীতীশ। বুধবার ইস্তফার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে পুরনো বন্ধু বিজেপির হাত ধরে ফের বিহারে সরকার গড়লেন তিনি। শপথ নিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে।

বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন সুশীল মোদি। চার বছর পর নীতীশের ঘরে ফেরা নিয়ে বিহারে এনডিএ জোটের স্মৃতিই উসকে দিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার বিধানসভায় আস্থাভোট। জেডিইউ-বিজেপি জোট যে সেই পরীক্ষাতেও উতরে যাবে তা একরকম নিশ্চিত। কিন্তু, মণিপুর বা গোয়ার মতো বিহারেও বিজেপির রাতারাতি ক্ষমতায় চলে আসা নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। সত্যিই কী রাতারাতি পালাবদল, নাকি আগে থেকেই তৈরি ছিল চিত্রনাট্য?

Loading...

- গত লোকসভা ভোটের আগেই এনডিএ ছাড়েন নীতীশ কুমার

- নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে একের পর এক তোপ দাগেন তিনি

- ২০১৫ সালে বিহার বিধানসভা নির্বাচনে আরজেডি ও কংগ্রেসকে নিয়ে মহাজোট

- ওই নির্বাচনে জোরালো ধাক্কা খায় বিজেপি

- নীতীশ কুমার হয়ে ওঠেন মোদি বিরোধিতার অন্যতম মুখ

এমন প্রতিবাদী ভূমিকা থেকে কোন রসায়নে ফের বিজেপির বৃত্তে ঢুকে পড়া? চব্বিশ ঘণ্টার বিহার-নাটক ছাপিয়ে বড় হয়ে উঠছে সেই প্রশ্নই।

First published: 03:08:18 PM Jul 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर