Bihar Police Officer Killed in Bengal: ছেলে 'খুন' বাংলায় এসে, শোকে মৃত বিহারের পুলিশ অফিসারের মা! একইসঙ্গে শেষকৃত্য

Bihar Police Officer Killed in Bengal: ছেলে 'খুন' বাংলায় এসে, শোকে মৃত বিহারের পুলিশ অফিসারের মা! একইসঙ্গে শেষকৃত্য

মর্মান্তিক

ভিনরাজ্যে এসে ছেলের অকালমৃত্যুর শোক কিছুতেই কাটিয়ে উঠতে পারলেন না ওই পুলিশ আধিকারিকের মা। রবিবার বিহারের পূর্ণিয়ার বাড়িতে পুত্রশোকেই মৃ্ত্যুকোলে ঢলে পড়লেন অশ্বিনী কুমারের মা উর্মিলা দেবী।

  • Share this:

    #উত্তর দিনাজপুর: বাংলায় আসামী ধরতে এসে দুস্কৃতী হামলায় মৃত্যু হয়েছিল বিহারের কিষানগঞ্জ থানার এক পুলিশ ইন্সপেক্টরের (Bihar Police Officer Death in Bengal)। দিন তিনেক আগে গোয়ালপোখর থানার পান্তাপাড়া গ্রামের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছিল। বিহারের ওই পুলিশ ইন্সপেক্টরের নাম অশ্বিনী কুমার ( ৫০)। আর ভিনরাজ্যে এসে ছেলের অকালমৃত্যুর শোক কিছুতেই কাটিয়ে উঠতে পারলেন না ওই পুলিশ আধিকারিকের মা। রবিবার বিহারের পূর্ণিয়ার বাড়িতে পুত্রশোকেই মৃ্ত্যুকোলে ঢলে পড়লেন অশ্বিনী কুমারের মা উর্মিলা দেবী।

    ওই পুলিশ আধিকারিকের পরিবার সূত্রে খবর, ছেলের মৃত্যুর খবর শোনার পর থেকেই সংজ্ঞা হারাতে শুরু করেন উর্মিলা দেবী। আগে থেকেই তিনি হৃদরোগের জটিল সমস্যায় ভুগছিলেন। ছেলের মৃত্যুর খবর তাঁকে শারীরিক, মানসিকভাবে আরও ভেঙে দেয়। শোকের কারণেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি। ঘটনার কথা চাউড় হতেই স্থানীয় বাসিন্দারা জড়ো হন অশ্বিনী কুমারের বাড়িতে। আর ছেলে ও মায়ের শেষকৃত্যও একইসঙ্গে সম্পন্ন হয়।

    প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার গভীর রাতে বিহারের একটি মামলায় যুক্ত থাকা এক আসামীকে গ্রেপ্তার করতে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার পান্তাপাড়া গ্রামে আসেন বিহারের কিশানগঞ্জ থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর অশ্বিনী কুমার। অভিযোগ আসামী সহ দুস্কৃতীরা খুন করে কিশানগঞ্জ থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর অশ্বিনী কুমারকে। বিহারের আইজি সুরেশ প্রসাদ জানিয়েছিলেন, উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার পান্তাপাড়া গ্রামে মোটরবাইক চুরির আসামীকে ধরতে এসেছিল অশ্বিনী কুমারের নেতৃত্বে কিশানগঞ্জ থানার একটি টিম। এরপরই দুস্কৃতীরা অশ্বিনী কুমারকে ঘিরে ফেলে তাঁকে পিটিয়ে খুন করে। বাকি পুলিশ কর্মীরা গ্রামবাসীদের হাত থেকে পালিয়ে গিয়ে রক্ষা পেলেও ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় অশ্বিনী কুমারের।

    ইতিমধ্যেই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মহঃ ফিরোজ আলম ও তাঁর মা'কে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তবে, বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক পারদ চড়তে শুরু করেছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কথায়, 'দায়িত্ব পালন করতে এসে ভিন রাজ্যের পুলিশকে এখানে খুন হতে হয়। তৃণমূলের গুণ্ডারাই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখন চুপ কেন? তবে, চিন্তার কিছু নেই, ২ মে-র পর এই পার্টিটাকে আমরা তুলে দেব।'

    Published by:Suman Biswas
    First published: