• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • জুয়ায় হেরে স্ত্রীকে বন্ধুদের হাতে তুলে দিল স্বামী, চলল গণধর্ষণ, 'শুদ্ধ' করতে মহিলার শরীরে ঢালা হল অ্যাসিড

জুয়ায় হেরে স্ত্রীকে বন্ধুদের হাতে তুলে দিল স্বামী, চলল গণধর্ষণ, 'শুদ্ধ' করতে মহিলার শরীরে ঢালা হল অ্যাসিড

জুয়ার ঠেকে বউকে বাজি রাখল বিহারের ভাগলপুরের বাসিন্দা। বাজি হারায় নির্লজ্জ স্বামী স্ত্রীকে তুলে দেয় বন্ধুদের হাতে, চলতে থাকে গণধর্ষণ। একসময় স্ত্রী বাঁধা দিলে তাঁর গায়ে ঢেলে দেওয়া হয় অ্যাসিড

জুয়ার ঠেকে বউকে বাজি রাখল বিহারের ভাগলপুরের বাসিন্দা। বাজি হারায় নির্লজ্জ স্বামী স্ত্রীকে তুলে দেয় বন্ধুদের হাতে, চলতে থাকে গণধর্ষণ। একসময় স্ত্রী বাঁধা দিলে তাঁর গায়ে ঢেলে দেওয়া হয় অ্যাসিড

জুয়ার ঠেকে বউকে বাজি রাখল বিহারের ভাগলপুরের বাসিন্দা। বাজি হারায় নির্লজ্জ স্বামী স্ত্রীকে তুলে দেয় বন্ধুদের হাতে, চলতে থাকে গণধর্ষণ। একসময় স্ত্রী বাঁধা দিলে তাঁর গায়ে ঢেলে দেওয়া হয় অ্যাসিড

  • Share this:

    #পটনা: জুয়ার ঠেকে বউকে বাজি রাখল বিহারের ভাগলপুরের বাসিন্দা। বাজি হারায় নির্লজ্জ স্বামী স্ত্রীকে তুলে দেয় বন্ধুদের হাতে, চলতে থাকে গণধর্ষণ। একসময় স্ত্রী বাঁধা দিলে তাঁর গায়ে ঢেলে দেওয়া হয় অ্যাসিড।

    স্বাভাবিকভাবেই অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌনতার প্রতিবাদ করেছিলেন  নির্জাতিতা! কিন্তু কে শোনে তাঁর কথা ? ৩-৪ জন মিলে তাঁর শরীর ছিঁড়ে খেতে থাকে... একটা সময়ে তিনি বেঁকে বসলে স্ত্রীকে শাস্তি দিতে শরীরে অ্যাসিড ঢেলে দেয় স্বামী। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশি জেরায় অভিযুক্তের দাবি, স্ত্রীকে 'শুদ্ধ' করতেই নাকি তাঁর গায়ে অ্যাসিড ঢেলেছিল!

    ভাগলপুরের মোজাহিপুর থানার পুলিশ অফিসার রাজেশ কুমার ঝা জানান, রবিবার সন্ধ্যাতেই অভিযুক্ত সোনু হরিজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, দায়ের হয়েছে এফআইআর। পুলিশি জেরায় অভিযুক্ত জানায়, সে দেড় মাস আগে বন্ধুদের কাছে জুয়ার বাজি হারে। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী একমাসের জন্য স্ত্রীকে বন্ধুদের হাতে তুলে দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্ত্রী যেতে রাজি হননি। কাজেই শেষ পর্যন্ত বাড়িতেই চড়াও হয় স্বামীর বন্ধুরা, সেখানেই চলতে থাকে গণধর্ষণ।

    নির্যাতিতার অভিযোগ, এই ঘটনার পর শাশুড়ি তাঁকে জোর করে মোজাহিপুরের বাড়ির একটি ঘরে আটকে রেখেছিলেন। ঘটনা যাতে জানাজানি না হয়, সেই ভয়ে ঘরেই চলছিল প্রাথমিক চিকিৎসা। রবিবার কোনওক্রমে পালিয়ে বাপের বাড়িতে চলে যান নির্জাতিতা। মা-বাবাকে নিয়ে পৌঁছান লোদিপুর থানায় । সেখান থেকে তাঁকে পাঠানো হয় মোজাহিপুর থানায়। সেখানেই স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন নির্জাতিতা। মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: