একই কনে দেখিয়ে পাঁচ পাত্রকে প্রতারণা! ভোপালে পুলিশের জালে চক্র

একই কনে দেখিয়ে পাঁচ পাত্রকে প্রতারণা! ভোপালে পুলিশের জালে চক্র

প্রতীকী চিত্র ।

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের মোবাইল নম্বর থেকেই তাদের ঠিকানা পাওয়া যায়৷

  • Share this:

    #ভোপাল: পাকা কথার পর বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হত৷ কিন্তু বিয়ে করতে গিয়ে পাত্রপক্ষ দেখত কনে বা তাঁর বাড়ির লোকেদের দেখা নেই৷ এমন কি ফোনেও খোঁজ মিলত না তাঁদের৷ একজন নয়, একই কায়দায় পর পর পাঁচ জনপাত্রকে এই ভাবে ঠকিয়েছিল এক যুবতী এবং তার পরিবার৷ শেষ পর্যন্ত অবশ্য পুলিশের জালে ধরা পড়েছে ওই প্রতারক তরুণী এবং তাঁর সঙ্গীরা৷

    ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ভোপালে৷ কনে হিসেবে যে যুবতীকে দেখিয়ে এই প্রতারণার চক্র চলত, তার সঙ্গে আরও দু' জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ অভিযোগ, বিয়ের কথা পাকা হওয়ার পর প্রত্যেক বার পাত্রপক্ষের থেকে নানা ইন্ডিয়া টুডে-তে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, অছিলায় কুড়ি হাজার টাকা করে নিত ওই চক্রের সদস্যরা৷ পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে ৪২০ ধারায় প্রতারণার মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু হয়েছে৷

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগে হরদা জেলার একটি পরিবারের সঙ্গেও একই ভাবে প্রতারণা করে এই দলটি৷ প্রতারিত হয়েছে বুঝতে পেরে কোলার রোড থানায় অভিযোগ দায়ের করতে যায় পাত্রপক্ষের পরিবারটি৷ কিন্তু সেখানে গিয়ে তারা অবাক হয়ে দেখে, একই ভাবে প্রতারিত হয়ে আরও চারটি পরিবার পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে৷

    হরদা জেলার বাসিন্দা প্রতারিত ওই পাত্রের অভিযোগ, ভোপালের কোলার রোড এলাকায় বৃহস্পতিবার বিয়ে করতে যান তিনি৷ কিন্তু নির্দিষ্ট ঠিকানায় পৌঁছে তাঁরা দেখেন, সেই জায়গাটি তালাবন্ধ অবস্থায় রয়েছে৷ ফোনে পাত্রীপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলে দেখা যায়, ফোন বন্ধ রয়েছে৷ প্রতারিত হয়েছে বুঝতে পেরেই থানায় গিয়ে অভিযোগ জানায় পাত্রপক্ষ৷

    পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তদের মোবাইল নম্বর থেকেই তাদের ঠিকানা পাওয়া যায়৷ এর পর অভিযুক্ত কনে ছাড়াও দু' জনকে গ্রেফতার করা হয়৷ বিয়ের জন্য উপযুক্ত পাত্রী পাচ্ছে না, এমন পরিবারকে টার্গেট করত এই চক্রটি৷ এর পর ভোপালে এনে ওই যুবতীকে কনে হিসেবে পরিচয় দিয়ে আলাপ করানো হত পাত্রপক্ষের সঙ্গে৷ বিয়ের কথা পাকা হলে ২০ হাজার টাকা নেওয়া হত৷ কিন্ত বিয়ে আর হত না৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    লেটেস্ট খবর