ভারতে অনুপ্রবেশ ঘটছে না বলছে বিজিবি, বিএসএফের ভিন্ন মত

ভারতে অনুপ্রবেশ ঘটছে না বলছে বিজিবি, বিএসএফের ভিন্ন মত

photo source/swarjya

গত ৫ দিন ধরে গুয়াহাটিতে চলছিল বিএসএফ এবং বিজিবি-র ডিজি পর্যায়ের বৈঠক।

  • Share this:

    #গুয়াহাটি: কয়েকদিন আগেই ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়াল বৈঠক করেছিলেন। বাংলাদেশ যুদ্ধের ৫০ বছর পূর্তি হিসেবে একে অপরের বন্ধুত্বের ইতিহাস তুলে ধরেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান। চিলাহাটি - হলদিবাড়ি রেল যোগাযোগ শুরু হয় প্রায় ৫৫ বছর পর। প্রতিবেশী রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশে ভারতের কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ জানান প্রধানমন্ত্রী। পাল্টা পাকিস্তান বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়ে বাংলাদেশকে মুক্তি দেওয়ার জন্য ভারতের প্রশংসা করেন হাসিনা।

    গত ৫ দিন ধরে গুয়াহাটিতে চলছিল বিএসএফ এবং বিজিবি-র ডিজি পর্যায়ের বৈঠক। সেখানে বিজিবি ডিরেক্টর জেনারেল শফিনুল ইসলাম এবং বিএসএফ ডিজি রাকেশ আস্তানা যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন করেন। বাংলাদেশের দাবি এই মুহূর্তে ভারতে অনুপ্রবেশ ঘটছে না। যুক্তি দিয়ে শাফিনুল ইসলাম জানান,"বাংলাদেশের আর্থিক বিকাশ ঘটছে প্রতিদিন। গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। জনগণের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। তাই বাংলাদেশ থেকে ঝুঁকি নিয়ে রোজগারের জন্য ভারতে ঢোকার কারণ নেই'। এখানেই না থেমে তিনি দাবি করেন বাংলাদেশিরা বৈধ কাগজপত্র নিয়ে ভারতে আসেন চিকিৎসা বা অন্যান্য কাজে। বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনা ঘটলেও তা চিন্তাজনক নয় বলে দাবি করেছেন তিনি।

    উল্টে বৈধ প্রমাণপত্র নিয়ে ভারতে ঢোকার পরেও অসমে ২৫ জন মৎসজীবিকে আটকানোর ঘটনায় ভারতের দিকে আঙুল তোলেন বিজিবি ডিজি। পাশাপাশি এনআরসি নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য করতে চান না। ভারতের পক্ষ থেকে রাকেশ আস্তানা জানিয়েছেন এবছর বাংলাদেশ থেকে অবৈধভাবে ভারতে অনুপ্রবেশের জন্যে ৩২০৪ জনকে আটক করেছে বিএসএফ। তবে সবাই অনৈতিক কাজের জন্য এসেছিলেন এমন নয়। তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশে। কিছু অনুপ্রবেশকারীর অসামাজিক কাজের ট্র্যাকরেকর্ড থাকায় তাঁদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। পাশাপাশি বিএসএফ এবং বিজিবি অনুপ্রবেশ এবং চোরাচালান আটকাতে রাত্রে নজরদারি বাড়ানোর ব্যাপারে একমত হয়েছে। দুই দেশের বন্ধুত্ব এবং সীমান্ত সুরক্ষিত রাখার ব্যাপারে ঐক্যবদ্ধ  বিএসএফ- বিজিবি।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    লেটেস্ট খবর