বাজেট ২০২১: GDP-র ১৪ শতাংশের কাছাকাছি পৌঁছতে পারে ফিস্কাল ডেফিসিট

Barclay-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবারের বাজেট অর্থাৎ ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেট একাধিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ।

Barclay-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবারের বাজেট অর্থাৎ ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেট একাধিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ফেব্রুয়ারির প্রথম দিনেই বাজেট পেশ। করোনা পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই সূত্রে ধরে Barclay-এর এক সমীক্ষা নতুন দাবি করছে। Barclay-এর মতে, ২০২০-২১ সালে ফিস্কাল ডেফিসিট বা রাজস্ব ঘাটতির ক্ষেত্রে বড়সড় পরিবর্তন হতে পারে। এক্ষেত্রে GDP-র ১৪ শতাংশের কাছাকাছি পৌঁছাতে পারে ফিস্কাল ডেফিসিট। এই ১৪ শতাংশের মধ্যে ৭.৭ শতাংশ কেন্দ্রীয় সরকারের, ৫ শতাংশ রাজ্য সরকারের এবং অফ ব্যালান্স শিটে থাকবে ১.৩ শতাংশ।

প্রথমেই একটু জেনে নেওয়া যাক ফিস্কাল ডেফিসিট অর্থাৎ রাজস্ব বা রাজকোষ ঘাটতি বিষয়টি কী? সহজ কথায় বলতে গেলে সরকারের ঋণের হিসেব হল ফিস্কাল ডেফিসিট। ফিস্কাল ডেফিসিট বা রাজস্ব ঘাটতি মানে হল সব খাতে খরচ- ঋণ ছাড়া অন্য সব খাত থেকে আয়। এটি প্রকাশ করা হয়ে থাকে GDP বা গড় জাতীয় উৎপাদনের অংশ হিসেবে।

Barclay-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবারের বাজেট অর্থাৎ ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেট একাধিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ। করোনার জেরে অর্থনীতির পাঁজর ভেঙেছে। তবে শেষ দুই ত্রৈমাসিকে ধীরে ধীরে অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে উঠে পড়ে লেগেছে সরকার। মূলত মার্চ, মে, অক্টোবর ও নভেম্বরে সরকারের তরফে ফিস্কাল প্যাকেজের কথা ঘোষণা করা হয়। এক্ষেত্রে Barclays-এর আশা, GDP-র ১৪ শতাংশের কাছাকাছি পৌঁছাতে পারে ফিস্কাল ডেফিসিট। এর আগে ফিস্কাল ডেফিসিট ছিল GDP-র ১৩ শতাংশের কাছাকাছি।

এর পিছনে একটি হিসেবও রয়েছে। আশা করা হচ্ছে, প্রায় ১২.২ ট্রিলিয়নের কাছাকাছি হতে পারে প্রস্তাবিত ফিস্কাল ডেফিসিট। অর্থাৎ GDP-র প্রায় ৫.৫ শতাংশ এটি। সেই সূত্র ধরে আগামী অর্থবর্ষে ৩৪.৭ ট্রিলিয়নের উপরে খরচ বাড়াতে পারে সরকার। এক্ষেত্রে ন্যাশনাল ইনফ্রাস্ট্রাকচার, পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ-সহ একাধিক ক্ষেত্রে বড়সড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে আসন্ন বাজেটে। পাশাপাশি প্রতিরক্ষা ও স্বাস্থ্যক্ষেত্রেও উল্লেখযোগ্য ভাবে বাড়তে পারে অর্থ বরাদ্দের পরিমাণ।

উল্লেখ্য, ২০১৯-২০২০ অর্থবর্ষে কেন্দ্রীয় সরকারের ফিস্কাল ডেফিসিট GDP-র ৪.৬ শতাংশ থেকে ৭.৭ শতাংশে পৌঁছায়। অন্য দিকে, রাজ্যগুলিতে সামগ্রিক ভাবে GDP-র ৫ শতাংশ পর্যন্ত ফিস্কাল ডেফিসিট দেখা গিয়েছে। আর অফ-ব্যালান্স শিটে কমপক্ষে GDP-র ১.৩ শতাংশ ঘাটতি দেখা গিয়েছে। কী হতে চলেছে ২০২১-২২ অর্থবর্ষে, এখন সেটাই দেখার!

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: