Home /News /national /
আমফানের পর বন্যা!‌ অসমে ৩০ হাজার মানুষ বন্যা কবলিত, বাড়ছে করোনা সংক্রমণও

আমফানের পর বন্যা!‌ অসমে ৩০ হাজার মানুষ বন্যা কবলিত, বাড়ছে করোনা সংক্রমণও

অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা বাড়ছে উত্তরবঙ্গে। রবিবার থেকেই উত্তরবঙ্গে বাড়বে বৃষ্টি। সোমবার প্রবল বর্ষণের সর্তকতা উত্তরবঙ্গের সিকিম, অসম, মেঘালয় ও অরুণাচল প্রদেশে। মৌসুমী অক্ষরেখা আবারও হিমালয় পাদদেশ এলাকায় অবস্থান করায় বৃষ্টি বাড়বে। আগামী সপ্তাহের শুরুতে দক্ষিণবঙ্গের দু'এক জেলাতেও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।

অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা বাড়ছে উত্তরবঙ্গে। রবিবার থেকেই উত্তরবঙ্গে বাড়বে বৃষ্টি। সোমবার প্রবল বর্ষণের সর্তকতা উত্তরবঙ্গের সিকিম, অসম, মেঘালয় ও অরুণাচল প্রদেশে। মৌসুমী অক্ষরেখা আবারও হিমালয় পাদদেশ এলাকায় অবস্থান করায় বৃষ্টি বাড়বে। আগামী সপ্তাহের শুরুতে দক্ষিণবঙ্গের দু'এক জেলাতেও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।

বন্যায় সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হয়েছে গোয়ালপাড়া জেলা।

  • Share this:

    #‌গুয়াহাটি:‌ অসমে একদিকে যেমন বাড়ছে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা, তেমনই হঠাৎ করে এসে পড়া বন্যাতেও দিশেহারা হয়ে পড়ছেন মানু্ষ। সোমবারই অসমে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫০০ পেরিয়েছে। ওদিকে হড়পা বানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় ৩০ হাজার মানুষ।

    অসম সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, লক্ষ্মীপুর, ধেমাজি, ডিব্রুগড়, গোয়ালপাড়া সহ একাধিক জেলা এই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মোট ১২৭টি গ্রাম রয়েছে জলের তলায়। ৫৭৯ হেক্টর জমির ফসল বন্যায় প্রভাবিত হয়েছে বলে জানিয়েছে সরকার। আর এই পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার দিনই অসমে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। একদিনে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে ১৩৪। সব মিলিয়ে অসমে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫২৬। যাঁদের মধ্যে ৬২ জন সুস্থ হয়েছেন, চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

    বন্যায় সবচেয়ে বেশি প্রভাবিত হয়েছে গোয়ালপাড়া জেলা। সেখানে ৮৯টি গ্রামের ২৩ হাজার মানুষ বন্যার কবলে পড়েছেন। ত্রাণ শিবিরে এই জেলা থেকেই সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আট হাজার মানুষকে। অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানিয়েছেন, যা পরিস্থিতি তাতে বড়সড় বন্যার মুখে পড়তে চলেছে রাজ্য। তাই রাজ্যের বাইরে যাঁরা আছেন, তাঁরা যেন ১০ জুন– এর ভিতরে রাজ্যে ফেরত আসেন। তাহলে রাজ্য সরকার সম্পূর্ণভাবে বন্যা মোকাবিলায় নজর দিতে পারবে।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published:

    Tags: Assamrflood, Flashflood, Flood

    পরবর্তী খবর