উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে প্রথম পর্যায়ে ভোট পড়ল ৬৪.২%, কোনপক্ষে গেল জনতার রায় ?

উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে প্রথম পর্যায়ে ভোট পড়ল ৬৪.২%, কোনপক্ষে গেল জনতার রায় ?
Picture Courtesy PTI

উত্তরপ্রদেশের প্রথম পর্যায়ের ভোটের গতিপ্রকৃতি চিন্তা বাড়াল রাজনৈতিক দলগুলির।

  • Share this:

#লখনউ: উত্তরপ্রদেশের প্রথম পর্যায়ের ভোটের গতিপ্রকৃতি চিন্তা বাড়াল রাজনৈতিক দলগুলির। ৭৩টি কেন্দ্রে ভোট দিলেন এক কোটির বেশি মানুষ। তাদের রায় কোনপক্ষে গেল ? দিনের শেষে তা আঁচ করতে পারছে না ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে নামা সমাজবাদী পার্টি, বিজেপি ও বহুজন সমাজ পার্টি। প্রথম পর্যায়ে ৭৩টি আসনে ভোট পড়েছে ৬৪.২ শতাংশ। বড় কোনও সংঘর্ষের ঘটনা নেই।

কড়া নিরাপত্তায় উত্তরপ্রদেশে প্রথম পর্যায়ের ভোটপর্ব শেষ করল কমিশন। ভোট শেষ হওয়া পর্যন্ত ৩৪৯টি অভিযোগ দায়ের হয়েছে কমিশনে। এত কম অভিযোগ উত্তরপ্রদেশে নজিরবিহীন। রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসারের দাবি, ভোট দেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন সব ভোটারই।

নয়ডা বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ৫১ শতাংশ। এই কেন্দ্রে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের ছেলে পঙ্কজ সিং ছিলেন প্রার্থী ৷ এছাড়াও কংগ্রেস পরিষদীয় দলনেতা প্রদীপ মাথুর, বিজেপি মুখপাত্র শ্রীকান্ত শর্মা, সঙ্গীত সোমের মতো হেভিওয়েট প্রার্থীরাও লড়াইয়ে ছিলেন। বিশেষত সারদানা, বাগপত, মথুরা, কায়রানা, থানাভবনের মতো স্পর্শকাতর বিধানসভা কেন্দ্রে নজর রেখেছিলেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তবে কড়া নিরাপত্তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যায়নি। জেওর এবং দাদরি বিধানসভা কেন্দ্রে ভোট পড়েছে যথাক্রমে ৬৫ এবং ৬১ শতাংশ।

বুথের সামনে ভোটার স্লিপ ছিনতাইয়ের চেষ্টা, তিনটি এলাকায় দুই রাজনৈতিক দলের কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি। উত্তেজনা বলতে এতটুকুই। এরই মধ্যে নতুন করে বিতর্কে জড়ান সারদানার বিধায়ক সঙ্গীত সোমের ভাই গগন। পিস্তল নিয়ে বুথে ঢুকতে গেলে আটক করা হয় গগনকে। বাগপতে দলিত ভোটারদের ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দেওয়ার অভিযোগে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি-আরজেডি সমর্থকরা। ৭ আরজেডি কর্মীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ।

গত বিধানসভায় এই ৭৩টি বিধানসভার মধ্যে ২৪টি করে বিধানসভা সিপি ও বিএসপির দখলে ছিল। এবার কি হবে? অন্তত ৩৫টি আসনের যে লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়েছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ, তা কি পূরণ হবে? প্রথম পর্যায়ের পর সেই নিশ্চয়তা দিতে পারছে না কোনও দলই।

First published: 09:30:55 AM Feb 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर