corona virus btn
corona virus btn
Loading

বুট পরা পায়ে যৌনাঙ্গে একের পর এক লাথি, বাবা-ছেলের পর অটোচালকের মৃত্যুতে ফের কাঠগড়ায় পুলিশ

বুট পরা পায়ে যৌনাঙ্গে একের পর এক লাথি, বাবা-ছেলের পর অটোচালকের মৃত্যুতে ফের কাঠগড়ায় পুলিশ
প্রতীকী ছবি

তেনকাশী জেলার বাসিন্দা মৃত ওই অটোচালকের নাম কুমারেসান (৩০) । শনিবার তিরুনেলভেলির এক সরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর ।

  • Share this:

#চেন্নাই: পুলিশি হেফাজতে বাবা-ছেলের মৃত্যুতে উত্তাল গোটা দেশ । নির্মম অত্যাচারে সেই ঘটনার ৭ দিনের মধ্যেই ফের তামিলনাড়ুতে পুলিশি অত্যাচারে এক অটোচালকের মৃত্যুর অভিযোগ প্রকাশ্যে এল । পরিবারের অভিযোগ, বুট দিয়ে যৌনাঙ্গে লাঠি মারা হয় তাঁকে । ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনেক অনুনয়-বিনয়ের তারপরেও চলে নারকীয় অত্যাচার । এরপর তিনি বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েন । এক মাস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর শনিবার মারা যান । ঘটনার কথা প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষোভে ফুঁসছে দেশবাসী ।

তেনকাশী জেলার বাসিন্দা মৃত ওই অটোচালকের নাম কুমারেসান (৩০) । গত শনিবার তিরুনেলভেলির এক সরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর  । মৃত্যুর পরে তাঁর পরিবারের তরফে রহস্যজনক মৃত্যুর অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে । পাশাপাশি , এক সাব ইনস্পেক্টর ও এক কনস্টেবলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে । মৃতের বাবা জেলা পুলিশের প্রধানের কাছে হেফাজতে পুলিশি বর্বরতা নিয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন ।

ঠিক কি ঘটেছিল? কুমারেসানের বাবার অভিযোগ , ১০মে পুলিশ এলাকায় গোলমালে যুক্ত সন্দেহে কুমারেসানকে থানায় তলব করা করে । তারপর সে ফিরে আসে কিন্তু পড়ের দিন অসুস্থ হয়ে পড়ে । প্রবল পেতে ব্যথা এবং বমি হওয়ায় তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । প্রথমে বেসরকারি এবং পরে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা যান তিনি । কুমারেসানের মৃত্যুর পরে তাঁর প্রতিবেশী এবং পরিজনেরা থানায় বিক্ষোভ দেখান ।

মৃতের বাবার দাবি, মৃত্যুর আগে কুমারেসান জানিয়েছেন , সেদিন থানায় যাওয়ার পরে পুলিশ অত্যাচার শুরু করে । বুট পরা পা দিয়ে তাঁর যৌনাঙ্গে প্রবল আঘাত করা হয় । একইসঙ্গে এক সাব ইনস্পেক্টর ও কয়েকজন কনস্টেবল মিলে তাঁর থাইয়ের ওপরে দাঁড়িয়ে পড়েছিলেন । পিঠেও লাঠি দিয়ে বার বার আঘাত করা হয় । এতেই কাহিল হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে সে । পরে বাড়ি ফিরে কথাবার্তা বন্ধ করে দেন । পরের দিনই অসুস্থ হয়ে পড়েন ।

তেনকাশী থানার পুলিশ প্রধান সুগুনা সিং জানিয়েছেন , পুলিশের ডিজি স্থির করবেন ঘটনার তদন্ত কোন পথে এগোবে । পরিবারের অভিযোগ প্রমাণিত হলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে । তবে অভিযুক্ত পুলিশ আধিকারিকদের ইতিমধ্যে বদলি করে দেওয়া হয়েছে । এ দিকে, রবিবার ওই অটোচালকের মৃত্যু নিয়ে সরব হন বিরোধী দল ডিএমকে-র প্রধান এম কে স্ট্যালিন ।

প্রসঙ্গত , গত রবিবার তামিলনাড়ু সরকার তুতিকোরিনে নিহত ব্যবসায়ী ও তাঁর ছেলের মৃত্যুর তদন্তের দায়িত্ব সিবিআইয়ের হাতে তুলে দিয়েছে । তাঁদের মৃত্যুর পরে দুই সাব ইনস্পেক্টর-সহ চার পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে ।

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 29, 2020, 4:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर