দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

১১ মাস নিরন্তর পরিশ্রমের ফসল, দেশের নানা প্রান্তে কোভিশিল্ড...আবেগে ভাসলেন সেরাম ইনস্টিটিউটের কর্ণধার

১১ মাস নিরন্তর পরিশ্রমের ফসল, দেশের নানা প্রান্তে কোভিশিল্ড...আবেগে ভাসলেন সেরাম ইনস্টিটিউটের কর্ণধার

ভারতে করোনা থাবা বসানোর পর, গত ১১ মাস ধরে কোভিড ভ্যাকসিন 'কোভিশিল্ড' আবিষ্কারে দিনরাত খেটে চলেছেন সেরাম ইনস্টিটিউটের গবেষক-সহ হাজার হাজার কর্মী! অবশেষে সেই গর্বের মুহূর্ত... প্রস্তুত বহু প্রতিক্ষীত ভ্যাকসিন... মঙ্গলবার প্রথম কনসাইনমেন্ট রওনা হওয়ার সময় সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রতিটি কর্মীর মুখে সাফল্যের হাসি, আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন ইনস্টিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়ালা!

  • Share this:

#পুণে: ১৬ তারিখ গোটা দেশ জুড়ে শুরু হবে করোনা ভ্যাকসিনের টিকাকরণ! ভ্যাকসিন দেওয়া হবে ৩ কোটি ভারতবাসীকে। হাতে আর মাত্র ৩ টে দিন! কাজেই মঙ্গলবার কাকভোরেই পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন নিয়ে রওনা দেয় ৩টি ট্রাক। ভারতে করোনা থাবা বসানোর পর, গত ১১ মাস ধরে কোভিড ভ্যাকসিন 'কোভিশিল্ড' আবিষ্কারে দিনরাত খেটে চলেছেন সেরাম ইনস্টিটিউটের গবেষক-সহ হাজার হাজার কর্মী! অবশেষে সেই গর্বের মুহূর্ত... প্রস্তুত বহু প্রতিক্ষীত ভ্যাকসিন... মঙ্গলবার প্রথম কনসাইনমেন্ট রওনা হওয়ার সময় সেরাম ইনস্টিটিউটের প্রতিটি কর্মীর মুখে সাফল্যের হাসি, আবেগপ্রবণ হয়ে পড়লেন ইনস্টিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়ালা!

তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রিত ৩টি ট্রাক করে ভ্যাকসিন নিয়ে যাওয়া হয় পুণের বিমানবন্দরে। সেখান থেকে একটি বিশেষ কার্গো বিমানে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া হয় ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে। জানা গিয়েছে, ভোর ৫টায় সিরাম ইনস্টিটিউট থেকে রওনা দেয় ট্রাকগুলি। তার আগে ছিল পুজোর আয়োজন। পুণে বিমানবন্দর থেকে বিশেষ কার্গো বিমানে ভ্যাকসিন যায় দেশের ১৩টি জায়গায়। এরমধ্যে রয়েছে আহমেদাবাদ, কলকাতা, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, কর্ণাল, হায়দরাবাদ, বিজয়ওয়াড়া, গুয়াহাটি, লখনৌ, চন্ডীগড় ও ভূবনেশ্বর। ৩টি ট্রাকে মোট ৪৭৮টি বাক্সে রাখা হয় কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন। এক-একটি বাক্সের ওজন ৩২ কেজি। আগামী ৫দিনের মধ্যেই কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন পৌঁছবে গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ ও হরিয়ানায়।

ইতিমধ্যেই কলকাতায় পৌঁছেছে করোনার ভ্যাকসিন কোভিশিল্ড৷ এ'দিন বেলা পৌনে দুটো নাগাদ পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে বিশেষ বিমানে কলকাতা বিমানবন্দরে এসে পৌঁছয় করোনার ভ্যাকসিন৷ বিমানবন্দরে ছিল সাজো সাজো রব৷ আগে থেকেই তৈরি রাখা হয়েছিল দু'টি ইনস্যুলেটেড ভ্যান৷ সেই ভ্যানে করেই সরাসরি বাগবাজারে সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোরে নিয়ে যাওয়া হয়৷ যানজটের কারণে যাতে দেরি না হয়, সেই জন্য পুলিশের পাইলট কারেরও ব্যবস্থা ছিল। ৮৩টি বাক্সে করে ভ্যাকসিনের মোট ৬ লক্ষ ৮৯ হাজার ডোজ এসেছে কলকাতায়৷ বাগবাজারের সেন্ট্রাল মেডিক্যাল স্টোরের দু'টি বিশেষ ফ্রিজারে ২ থেকে ৫ ডিগ্রি তাপমাত্রার মধ্যে রাখা হবে এই ভ্যাকসিনগুলি। বাগবাজারের এই কেন্দ্র থেকেই রাজ্যের আরও ৯৪১টি কেন্দ্রে এই ভ্যাকসিনগুলি পাঠানো হবে৷ আজই পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম এবং উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির উদ্দেশ্যে ইনস্যুলেটেড ভ্যানে করেই ভ্যাকসিনগুলি পাঠানো হবে৷ আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে করোনার টিকাকরণ শুরু হওয়ার কথা৷ আগামিকাল, বুধবারের মধ্যেই রাজ্যের সব জেলায় ভ্যাকসিন পৌঁছে যাবে বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর৷

Published by: Rukmini Mazumder
First published: January 12, 2021, 6:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर