corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফিরিয়ে দিল নয়ডার ৮টি হাসপাতাল, ১৩ ঘণ্টা ধরে অসহ্য প্রসব বেদনার পর মৃত ৮ মাসের গর্ভবতী !

ফিরিয়ে দিল নয়ডার ৮টি হাসপাতাল, ১৩ ঘণ্টা ধরে অসহ্য প্রসব বেদনার পর মৃত ৮ মাসের গর্ভবতী !
প্রতীকী চিত্র ।

আট আটটি হাসপাতালের দরজায় কাতরভাবে কড়া নাড়লেন তিনি । কিন্তু সব হাসপাতালই শুনিয়ে দিল বেড খালি নেই । শেষ পর্যন্ত ১৩ ঘণ্টা ধরে অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করতে করতে অ্যাম্বুল্যান্সেই মৃত্যু হল নীলমের ।

  • Share this:

#নয়ডা: বারবার দেশ জুড়ে এমন সব ঘটনা উঠে আসছে সংবাদ মাধ্যমের পাতায় যা দেখে ক্রমশই গ্রাস করছে হতাশা । কখনও পরিযায়ী শ্রমিকদের হাজার হাজার মাইল হেঁটে চলা, কখনও গর্ভবতী মায়ের হাঁটতে হাঁটতে মৃত সন্তানের জন্ম দেওয়া, কখনও গর্ভবতী হস্তিনী, কখনও বা গর্ভবতী গরুকে বাজি ভর্তি ফল খাইয়ে মৃত্যুযন্ত্রণা দেওয়া...কখনও আবার সন্তানকে জন্ম দেওয়ার আকুল প্রার্থনায় চিকিৎসকদের দরজায় দরজায় ঘুরে শেষ পর্যন্ত হার মেনে নেওয়া ।

এমনই ঘটনা ঘটল এবার নয়ডায় । আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা বছর তিরিশের নীলম যখন প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন, তখন স্বামী বিজেন্দ্র সিং তাঁকে নিয়ে শহরের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত ছুটে বেড়াচ্ছেন একটা বেড পাওয়ার আশায় । আট আটটি হাসপাতালের দরজায় কাতরভাবে কড়া নাড়লেন তিনি । কিন্তু সব হাসপাতালই শুনিয়ে দিল বেড খালি নেই । শেষ পর্যন্ত ১৩ ঘণ্টা ধরে অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করতে করতে অ্যাম্বুলেন্সেই মৃত্যু হল নীলমের ।

গত শুক্রবার এই ঘটনার ঘটে । ঘটনাটি জানাজানি হতেই নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় প্রশাসন । গৌতম বুদ্ধ নগর জেলা প্রশাসন ঘটনাটি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে । নীলমের পরিবার পুলিশকে জানিয়েছে, নীলমের কিছু প্রেগন্যান্সি সংক্রান্ত সমস্যা ছিল । তিনি শিবালিক হাসপাতালে নিয়মিত চেকআপ করাতেন । কিন্তু সেদিন ওই হাসপাতালও তাঁকে ভর্তি করতে অস্বীকার করে । এলাকার সমস্ত বেসরকারি, সরকারি হাসপাতালে ঘোরেন তাঁরা । কিন্তু সকলেই ফিরিয়ে দেয় নীলমকে । শেষ পর্যন্ত গভর্মেন্ট ইন্সস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্স নীলমকে ভর্তি করে ভেন্টিলেটরের ব্যবস্থা করে । কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে । এই টানাপোড়েনের জীবন ছেড়ে অনেক দূরে চলে গিয়েছেন নীলম ।

Published by: Simli Raha
First published: June 7, 2020, 3:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर