ঘোড়া কেনাবেচার ভয়, অসমে ভোট শেষ হতেই প্রার্থীদের জয়পুরে পাঠাল এআইইউডিএফ

ঘোড়া কেনাবেচার ভয়, অসমে ভোট শেষ হতেই প্রার্থীদের জয়পুরে পাঠাল এআইইউডিএফ

জয়পুরের এই হোটেলেই রাখা হয়েছে এআইডিইউএফ প্রার্থীদের৷

অসমে তিন দফায় ভোট হয়েছে৷ তৃতীয় এবং শেষ দফার ভোট শেষ হয়েছে গত ৬ এপ্রিল৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: সাধারণত নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর শুরু হয় ঘোড়া কেনাবেচার চেষ্টা৷ কিন্তু সাম্প্রতিক অতীতে যেভাবে বিভিন্ন রাজ্যে ফলপ্রকাশ হতে না হতেই বিধায়ক কেনাবেচা হয়েছে, সেই অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে ফল বেরনোর অপেক্ষা করল না অসমের দল এআইিউডিএফ৷ অসমে ভোট শেষ হতে না হতেই দলের ১৮ জন প্রার্থীকে জয়পুরের একটি হোটেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ যাতে তাঁদেরকে দলে টানতে বিপক্ষ শিবির বা বলা ভাল বিজেপি কোনও চেষ্টাই না করতে পারে৷

    অসমে তিন দফায় ভোট হয়েছে৷ তৃতীয় এবং শেষ দফার ভোট শেষ হয়েছে গত ৬ এপ্রিল৷ এবার কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে অসমে ভোটে লড়েছে এআইইউডিএফ৷ অতীতে অবশ্য তারা বিজেপি-রই জোট শরিক ছিল৷ তবে সূত্রের খবর, কংগ্রেসের নেতৃত্বে যে মহাজোট তৈরি হয়েছিল অসমে, তাদের পক্ষ থেকেই শরিক দলগুলির প্রার্থীদের জয়পুরের হোটেলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল৷ কয়েকদিনের মধ্যেই কংগ্রেসের কয়েকজন প্রার্থীকেও ওই হোটেলে পাঠিয়ে দেওয়া হবে৷

    জয়পুর শহরের ফেয়ারমাউন্ট হোটেলে নিয়ে রাখা হয়েছে এআইইউডিএফ-এর সমস্ত প্রার্থীদের৷ এআইডিইউএফ প্রধান মৌলানা বদরুদ্দিন আজমলও জয়পুর উড়ে গিয়েছেন৷ এআইডিইফএফ-এর প্রার্থী আমিনুল ইসলাম বলেন, 'আমরা রাজস্থানের সমস্ত পর্যটন কেন্দ্রগুলি ঘুরে দেখব৷ আজমেঢ় শরিফেও যাবো৷ নির্বাচনে প্রচণ্ড ধকলের পর নিজেদের একটু তরতাজা করতেই এই আয়োজন করা হয়েছে৷ তাছাড়া এ ভাবে থাকলে সবাই একজোটও থাকবেন এবং ঘোড়া কেনাবেচার সম্ভাবনাও কমবে৷ ভোটের ফল প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত হয়তো প্রার্থীদের কেউই রাজ্যে ফিরবেন না৷' আগামী ২ মে বাকি চারটি রাজ্যের মতো অসমের বিধানসভা নির্বাচনেরও ফল ঘোষণা হবে৷

    অসমে কংগ্রেস, এআইডিইউএফ, সিপিএম, সিপিআই, সিপিআইএম(এল), আরজেডি, বোরোল্যান্ড পিপলস ফ্রন্টের মতো দশটি দল মিলে মহাজোট তৈরি করেছে৷ অন্যদিকে বিজেপি অসম গণ পরিষদ এবং ইউপিপিএল-এর সঙ্গে জোট বেঁধে নির্বাচনে লড়ছে৷ ২০১৬ সালে অসমে বিজেপি জিতেছিল ৬০টি আসন, অসম গণ পরিষদ পায় ১৪টি আসন এবং তৎকালীন জোট শরিক বিপিএফ ১২টি আসনে জয়ী হয়েছিল৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:
    0

    লেটেস্ট খবর