সুপ্রিম কোর্টের কড়া বার্তা, অবশেষে সক্রিয় হল নির্বাচন কমিশন

সুপ্রিম কোর্টের কড়া বার্তা, অবশেষে সক্রিয় হল নির্বাচন কমিশন

সোমবার সুপ্রিম কোর্টে এই সওয়ালের পরই মায়াবতী ও আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিল কমিশন।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সুপ্রিম কোর্টে মামলা ওঠার পরই সক্রিয় হল নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য প্রথমে যোগী আদিত্যনাথ ও মায়াবতীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। রাতের দিকে আজম খান ও মেনকা গান্ধির বিরুদ্ধেও কার্যত একই পথে হেঁটে শাস্তি কমিশনের। আজ সকাল ৬ টা থেকে শাস্তি কার্যকর।

সুপ্রিম কোর্টে ধাতানি খেয়ে হুঁশ ফিরল নির্বাচন কমিশনের? সোমবার দিনভর যে ঘটনা ঘটল, তাতে এমনটা মনে হতেই পারে। শীর্ষ আদালতে একরাশ অজুহাত দেওয়ার পর হঠাৎই সক্রিয় সুনীল অরোরা অ্যান্ড কোম্পানি।

জাতপাত, সম্প্রদায়ের নামে উসকানি নিয়ে ভোটপ্রচার করলেও কমিশনের নাকি হাত-পা বাঁধা। কারণ ব্যবস্থা নেওয়ার মতো আইনি ক্ষমতাই নাকি কমিশনের নেই। সোমবার সুপ্রিম কোর্টে এই সওয়ালের পরই মায়াবতী আদিত্যনাথের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিল কমিশন। কোন আইনে এই অভিযুক্ত নেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা?

নির্বাচন কমিশনের সচিব অনিল জয়পুরিয়ার সই করা চিঠিতে জানানো হয়েছে,

একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের কাছে ভোটের আবেদন করেন বিএসপি নেত্রী

কমিশনের নোটিশের প্রেক্ষিতে তা স্বীকারও করেছেন

ওই সভায় প্ররোচনা মূলক বক্তব্য রাখেন নেত্রী

এই বক্তব্য নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছে

-মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে বাড়তি দায়িত্ব আদিত্যনাথের

-৯ এপ্রিলের সভায় প্ররোচনামূলক বক্তব্য রাখেন

-এতে তাঁর পদের সম্মান ও আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে

নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ প্রমাণিত হলে , কমিশনের হাতে ব্যবস্থা নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে। সেই ক্ষমতাকে বরং কাজে লাগাক কমিশন। সোমবারের ঘটনা তুলে ধরেই মত আইনি বিশেষজ্ঞদের।

First published: 03:19:21 PM Apr 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर