• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • করোনা নয়, তবু মুসলিম এলাকায় অস্বাভাবিক হারে মৃত্যু বেড়েছে ইনদওরে! চিন্তায় প্রশাসন

করোনা নয়, তবু মুসলিম এলাকায় অস্বাভাবিক হারে মৃত্যু বেড়েছে ইনদওরে! চিন্তায় প্রশাসন

কবরস্থানের ছবিটি প্রতীকী

কবরস্থানের ছবিটি প্রতীকী

আরও আশ্চর্যের বিষয় হল, এই হারে মৃত্যুর সঙ্গে কিন্তু করোনা ভাইরাসের যোগ পাওয়া যাচ্ছে না৷ গত কয়েক সপ্তাহ ধরে এই প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন৷

  • Share this:

    #ইনদওর: দেশে যত করোনা ভাইরাস হটস্পট চিহ্নিত করা হয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম হল ইনদওর৷ ওই অঞ্চলে করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে প্রশাসন৷এ হেন পরিস্থিতিতে প্রশাসনের মাথাব্যথা বাড়াল আরও একটি ঘটনা৷ তা হল, ইনদওরের মুসলমান অধ্যুষিত এলাকায় অস্বাভাবিক ভাবে মৃত্যুর হার বেড়ে গিয়েছে, অন্যান্য সময়ের তুলনায়৷

    আরও আশ্চর্যের বিষয় হল, এই হারে মৃত্যুর সঙ্গে কিন্তু করোনা ভাইরাসের যোগ পাওয়া যাচ্ছে না৷ গত কয়েক সপ্তাহ ধরে এই প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন৷ যেমন গত বৃহস্পতিবার ইনদওরের ৪টি কবরস্থানে ২১টি দেহ কবর দেওয়া হয়েছে৷ মোহ নাকা নামে একটি কবরস্থানে শুধুমাত্র ১ এপ্রিল থেকে ৯ ও গত ১১ তারিখ পর্যন্ত ২১টি দেহ কবর দেওয়া হয়েছে৷ খজরানার কাছে একটি কবরস্থানে এপ্রিলের প্রথম ৯ দিনেই ৩৪টি দেহ সমাধিস্থ করা হয়েছে৷ লুনায়পুরায় মাসের প্রথম ৯দিনে ৫৬টি দেহ কবর দেওয়া হয়েছে৷ শুধু গত বৃহস্পতিবারই ৬টি দেহ৷

    রিপোর্ট বলছে, শহরের ৪টি কবরস্থানে এপ্রিলের প্রথম ৬ দিনেই ১২৭ জন মুসলমানের দেহ কবর দেওয়া হয়েছে৷ সেখানে মার্চে ১৩০টি কবর দেওয়া হয়েছিল৷ কাশিস উন্নিসার মারা যান গত ৬ এপ্রিল৷ বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর৷ তাঁর নাতি জাবির আলি জানাচ্ছেন, কোনও রোগ ছিল না কাসিসের৷ কয়েক বছর আগে একটি অপারেশন হয়েছিল৷ হঠাত্‍ মারা গেলেন৷ কারও করোনা ভাইরাস মেলেনি৷ উপসর্গও ছিল না?

    তবে প্রশাসনের একটি অংশের ধারণা, বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, করোনা ভাইরাসের মৃত্যু হচ্ছে না৷ করোনার জেরে শহরের বেশির ভাগ হাসপাতালে অন্যান্য চিকিত্‍সা প্রায় হচ্ছেই না৷ সেটাও মৃত্যুর কারণ হতে পারে৷ তবুও চিন্তা-মুক্ত হতে পারছে না প্রশাসন৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: