Home /News /national /
Abhishek Banerjee in Tripura: হঠাৎই কৌশলে বদল, শুক্রে অভিষেকের ত্রিপুরা সফরের দিকে নজর দিল্লিরও!

Abhishek Banerjee in Tripura: হঠাৎই কৌশলে বদল, শুক্রে অভিষেকের ত্রিপুরা সফরের দিকে নজর দিল্লিরও!

ত্রিপুরা অভিষেকের মিছিল৷

ত্রিপুরা অভিষেকের মিছিল৷

Abhishek Banerjee in Tripura: শুক্রবার সম্ভবত ত্রিপুরায় পা রাখছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লি থেকে সকালের বিমানেই আগরতলা পৌঁছতে পারেন তিনি।

  • Last Updated :
  • Share this:

#ত্রিপুরা: 'খেলা' শুরু হয়ে গিয়েছে ত্রিপুরায়। বিজেপি শাসিত রাজ্যে ক্রমেই ঝাঁকিয়ে বসতে চলেছে এ রাজ্যের শাসক দল। আর তাতে ঘৃতাহুতি দিয়েছে প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাকের কর্মীদের ত্রিপুরা সরকারের আটক করে রাখার পর থেকে। যদিও এদিনই আইপ্যাকের সকলের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছে আদালত। আর এমনই এক পরিস্থিতিতে শুক্রবার সম্ভবত ত্রিপুরায় পা রাখছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লি থেকে সকালের বিমানেই আগরতলা পৌঁছতে পারেন তিনি।

আর অভিষেকের এই ত্রিপুরা সফর ঘিরেই সরগরম রাজনীতি। অভিষেক এসে কি বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে চড়া সুর ধরবেন? প্রকাশ্যে সমাবেশ করে বিঁধবেন বিপ্লব দেব সরকারকে? তেমন সম্ভাবনা কম বলেই মনে করা হচ্ছে। কোভিড বিধির কারণ দেখিয়ে যেভাবে আইপ্যাকের কর্মীদের আটক করে রাখা হয়েছে, তাতে অভিষেকের সঙ্গেও এমন কিছু ঘটার আশঙ্কা একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। তৃণমূল সূত্রে খবর, দলের সংগঠন মজবুত করার বার্তা দিতে দলীয় বৈঠক করতে পারেন অভিষেক। কিন্তু প্রকাশ্য সমাবেশ এড়িয়ে যাবেন তিনি।

ইতিমধ্যেই ত্রিপুরা প্রশাসনের তরফে বাধার সম্মুখীন হতে হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসকে। 'বৈঠক করতে গেলে দেখাতে হবে প্রশাসনের অনুমতি। না হলে মিটিং করা যাবে না।' এমনই নির্দেশ জারি হয়েছে। দলের সাংগঠনিক বৈঠকে যোগ দিতে ইতিমধ্যেই ত্রিপুরায় রয়েছেন ব্রাত্য বসু, মলয় ঘটক, ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়রা। কিন্তু বৃহস্পতিবার বৈঠকের শুরুর আগেই বড়সড় জটিলতার মুখে পড়তে হয়েছে তৃণমূলকে(Tripura Trinamool )।

সূত্রের খবর বৃহস্পতিবার আগরতলার 'মার্স' নামের একটি হোটেলে তৃণমূলের বৈঠকের প্রস্তুতি চলছিল। উপস্থিত ছিলেন ডেরেক ও ব্রায়েন ও কাকলি ঘোষ দস্তিদার। সেখানে ছিলেন মলয় ঘটক, ব্রাত্য বসু-সহ স্থানীয় নেতা কর্মীরাও। সেইসময় স্থানীয় থানা এসে হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়, জেলাশাসকের অনুমতি ছাড়া বৈঠক করা যাবে না। এই নিয়ে পরে পুলিশের সঙ্গে কথা বলেন মলয়-ব্রাত্যরা। এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে ডেরেক ও ব্রায়েন মন্তব্য করেন, 'খেলা শুরু তাই ভয় পেয়েছে ওরা।' তবে, ত্রিপুরা তৃণমূলের একাংশের আশঙ্কা, অভিষেক আগরতলায় পা রাখলেই নানা ধরনের জটিলতা তৈরি করতে পারে ত্রিপুরা সরকার। তাই অভিষেকের ত্রিপুরা যাত্রা নিয়ে পারদ ক্রমশই চড়ছে।

Published by:Suman Biswas
First published: