• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ABHISHEK BANERJEE TWEET TO ATTACK AMIT SHAH ON DELHI DALIT DAUGHTER RAPE AND KILLING SB

Abhishek Banerjee on Amit Shah: 'অসংবেদশীল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী'! দিল্লিতে শিশু ধর্ষণ-মৃত্যু, অভিষেকের নিশানায় অমিত

অভিষেকের নিশানায় অমিত

Abhishek Banerjee on Amit Shah: দিল্লির দলিত কন্যাকে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিশানায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: মাত্র ৯ বছরের দলিত শিশুকে ধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারার প্রতিবাদে উত্তাল দেশের রাজধানী দিল্লি। মঙ্গলবার যে ঘটনার প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছিল বিরোধীরা, বুধবার তা আরও বাড়ল। বুধবার সকালেই ওই নির্যাতিতা শিশুর বাড়ি যান রাহুল গান্ধী। গিয়েছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করে ন্যায় বিচার না পাওয়া পর্যন্ত তাঁদের পাশে থাকার আশ্বাসও দেন রাহুল ও কেজরি-দুজনেই। অপরদিকে, দিল্লির এই ঘটনায় তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নিশানায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

    মঙ্গলবার এই মর্মান্তিক ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমিত শাহকে সরাসরি কটাক্ষ করেন তৃণমূলের সর্ব ভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে প্রশ্ন তোলেন আমিত শাহের সংবেদনশীলতা এবং ভারতীয় মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়েও। নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে অভিষেক লেখেন, “অমিত শাহের চোখের সামনে প্রতিদিনই দেশজুড়ে ভারতের মেয়ে- মহিলা, তথা তফসিলি সম্প্রদায়ের সদস্যদের ভয়ানক অত্যাচারের মুখে পড়তে হচ্ছে। যা প্রমাণ করে দিচ্ছে আমাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কতটা অসংবেদনশীল। দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি লজ্জাজনক পর্যায়ে চলে গিয়েছে।” সূত্রের খবর, অভিষেকের নির্দেশেই ওই শিশুটির পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন তৃণমূল সাংসদ কাকলী ঘোষদস্তিদার।

    দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার বিকেলে দিল্লির ক‌্যান্টনমেন্ট অঞ্চলের পুরন নাঙ্গল এলাকার বাসিন্দা ওই শিশুটি বাড়ির সামনেই শ্মশান চত্বরে গিয়েছিল ঠান্ডা জল আনতে। তারপর থেকে আর খোঁজ মেলেনি তার। কিন্তু সন্ধ্যা ৬টায় নাগাদ ওই শ্মশানের পুরোহিত রাধে শ্যাম জানান, জলের কুলারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গিয়েছে শিশুটি। দেখা যায়, শিশুটির বাঁ হাতের কবজি এবং কনুইয়ের অংশ পুড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ঠোঁটও নীল হয়ে গিয়েছে তার।

    নাবালিকার মা পুলিশে ফোন করতে চাওয়া মাত্রই তাঁকে বাধা হয় বলে অভিযোগ। হুমকির মুখেও পড়তে হয় ওই মহিলাকে। পুলিশ কিংবা ডাক্তারদের খবর দিলে ময়নাতদন্তে নাবালিকার অঙ্গপ্রত্যঙ্গগুলি চুরি করে নেওয়া হবে বলে ভয় দেখানো হয়। শিশুটির বাবা মায়ের অভিযোগ, তাঁদের অনুমতি ছাড়াই শ্মশানে নাবালিকাকে দাহ করা হয়। ঘটনা সামনে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় গোটা এলাকায়। খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। এলাকার ২০০ জন মিলে শ্মশান ঘেরাও করে। তারপরই প্রকাশ্যে আসে ওই নৃশংস ঘটনা।

    Published by:Suman Biswas
    First published: