• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ABHISHEK BANERJEE MEETS POLICE INCHARGE OF KHOWAI TRIPURA FOR ARRESTED YUVA TMC LEADERS SB

Abhishek Banerjee: যুব নেতাদের ছাড়াতে থানায় অভিষেক! ত্রিপুরায় ফের 'গো ব্যাক', তৃণমূলই এখন 'বিরোধী'

লক্ষ্যে অবিচল

Abhishek Banerjee: খোয়াই থানায় সামনে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে 'গো ব্যাক' স্লোগান দেন বিজেপি কর্মীরা। পাল্টা স্লোগানে নামে তৃণমূলও।

  • Share this:

    #আগরতলা: মিশন ২০২৩। বাংলা জয়ের হ্যাটট্রিকের পর এবার তৃণমূলের নজরে বিজেপি শাসিত ত্রিপুরা। আর তারই সলতে পাকাতে দিন কয়েক আগেই ত্রিপুরায় গিয়েছিলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সফরের সাতদিনও কাটল না। ফের ত্রিপুরার মাটিতে অভিষেক। শনিবার ত্রিপুরায় আক্রান্ত হন দেবাংশু ভট্টাচার্য, সুদীপ রাহারা। রক্তাক্ত সেই হামলার প্রতিবাদে রবিবারই ফের ত্রিপুরায় যাওয়ার ঘোষণা করেন অভিষেক। কিন্তু তার আগেই রবিবার ভোরে দেবাংশু, সুদীপ সহ তৃণমূলের ১৪ জন নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপরই আগরতলায় নেমে অভিষেক সোজা চলে যান খোয়াই থানায়। সেখানেই আটক আছেন দেবাংশুরা। সেখানে ঢুকে অভিযোগ ভারপ্রাপ্ত অফিসারের ঘরে যান। রীতিমতো উত্তেজিত হয়ে অভিষেক দেবাংশুদের কীসের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তা জানতে চান। একইসঙ্গে দাবি করেন, দ্রুত ছেড়ে দিতে হবে তাঁর দলের নেতাদের। এরই মধ্যে খোয়াই থানায় সামনে অভিষেককে 'গো ব্যাক' স্লোগান দেন বিজেপি কর্মীরা। পাল্টা স্লোগানে নামে তৃণমূলও।

    এদিন আগরতলায় বিমানবন্দর থেকে বেরিয়েই সুর চড়ান তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। বলেন, 'বিপ্লব দেব চান বিরোধীরা তাঁর কাছ থেকে ভিসা নিয়ে তবেই ত্রিপুরায় ঢুকুন। বিজেপি সরকার ত্রিপুরাকে নিজেদের পৈতৃক সম্পত্তিতে পরিণত করেছে। বলেও মন্তব্য করেন তিনি। বিপ্লব দেব গণতন্ত্রের কথা বলেন কী করে? এখানে বিরোধীদের কিছু করতেই দেওয়া হয় না। সাতদিন হয়নি দ্বিতীয় বার ত্রিপুরায় এলাম। শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত লড়াই করব।'

    ২০২৩-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে ত্রিপুরায় জমি দখলের মরিয়া চেষ্টা করছে তৃণমূল। আর সেই সূত্রেই বিজেপি সরকারের সঙ্গে তৃণমূলের সংঘাতের সূত্রপাত। অভিষেকের প্রথম ত্রিপুরা সফরের সময়ও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল পরিস্থিতি। তাঁর গাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগও ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। সেই রেশ মিটতে না মিটতেই ফের যুব তৃণমূল নেতাদের উপর হামলা হয় শনিবার। রবিবার ভোরে ত্রিপুরায় ওই ১৪ জন তৃণমূল নেতা গ্রেফতারও হলেন। দলের যুব সৈনিকদের পাশে থাকতে আগেই ত্রিপুরা পৌঁছে গিয়েছিলেন ব্রাত্য বসু, দোলা সেন এবং কুণাল ঘোষ। আর সকাল এগারোটায় পৌঁছন অভিষেক।

    রাজনৈতিক মহলের মতে, দিন কয়েক আগে পর্যন্ত ত্রিপুরার রাজনীতি নিয়ে গোটা দেশে তেমন কোন চর্চা ছিল না। কিন্তু তৃণমূল সক্রিয় হয়ে উঠতেই বিজেপির সঙ্গে বিরোধ বেধেছে তাঁদের। আর পরিস্থিতি যা দেখা যাচ্ছে, তাতে ত্রিপুরাতে বিজেপি ক্রমেই বিরোধী পরিসর দখল করতে শুরু করেছে।

    Published by:Suman Biswas
    First published: