• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • একমাত্র মেয়ের বিয়ের জন্য তুলে রাখা ১১ লক্ষ টাকা শহিদ পরিবারকে দান করলেন কনের বাবা

একমাত্র মেয়ের বিয়ের জন্য তুলে রাখা ১১ লক্ষ টাকা শহিদ পরিবারকে দান করলেন কনের বাবা

শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে বউমার সম্পর্কের উন্নতি ঘটাতে পুরস্কার দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে হরিয়ানা একটি ছোট্ট গ্রাম ৷ কখনও বৃদ্ধ শ্বশুর-শাশুড়িকে অবহেলার অভিযোগ ওঠে তো কখনও দৈহিক ও মানসিক অত্যাচারের অভিযোগ ৷ এমন অবস্থার উন্নতি ঘটাতেই পুরস্কার দেওয়ার চল শুরু করল হরিয়ানার হিসার জেলার হানসি মহকুমার জগ্গা বররা গ্রাম ৷photo: representational image

শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে বউমার সম্পর্কের উন্নতি ঘটাতে পুরস্কার দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে হরিয়ানা একটি ছোট্ট গ্রাম ৷ কখনও বৃদ্ধ শ্বশুর-শাশুড়িকে অবহেলার অভিযোগ ওঠে তো কখনও দৈহিক ও মানসিক অত্যাচারের অভিযোগ ৷ এমন অবস্থার উন্নতি ঘটাতেই পুরস্কার দেওয়ার চল শুরু করল হরিয়ানার হিসার জেলার হানসি মহকুমার জগ্গা বররা গ্রাম ৷photo: representational image

দেশের এমন সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে তাই মেয়ের বিয়ের খাওয়া দাওয়ার জন্য তুলে রাখা মোট ১১ লক্ষ টাকা শহিদ পরিবারকে দান করলেন সুরাতের এক হিরে ব্যবসায়ী ৷ এর পাশাপাশি তিনি ৫ লক্ষ টাকা সিআরপিএফকে দান করেন ৷

  • Share this:

    #সুরাত: সেদিন ছিল ভালবাসর দিন ৷ একসঙ্গে নিভে গেল তাজা রক্ত গুলো ৷ অতন্ত্র প্রহরীর মতো যাঁরা বুক দিয়ে দেশটাকে আগলে রাখেন, কুৎসিত-জঘন্য এক জঙ্গি হামলায় মুহূর্তে শেষ হয়ে গিয়েছে সেই ৪২টা তরুণ স্বপ্ন ৷ সারা দেশ আজ মর্মাহত, শোকে নিশ্চুপ ৷ অন্যদিকে পুঞ্জিভূত হচ্ছে ক্ষোভ ৷ দেশের এমন সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে তাই মেয়ের বিয়ের খাওয়া দাওয়ার জন্য তুলে রাখা মোট ১১ লক্ষ টাকা শহিদ পরিবারকে দান করলেন সুরাতের এক হিরে ব্যবসায়ী ৷ এর পাশাপাশি তিনি ৫ লক্ষ টাকা সিআরপিএফকে দান করেন ৷ দেওয়াশি মানেক নামে ওই ব্যক্তির এক মাত্র মেয়ের বিয়ের তোড়জোড় চলছিল ৷ বিয়ে ছিল শুক্রবার ৷ সমস্ত আয়োজনও শেষ হয়ে গিয়েছিল ৷ একমাত্র মেয়ে ৷ তাই ধূমধামেও কমতি ছিল না ৷ কিন্তু হঠাৎই ছন্দপতন ৷ টিভির পর্দায় বেসে উঠল মর্মান্তিক সেই খবর ৷ কাশ্মীরের পুলওয়ামার লেথপোরাতে ৪৪ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর সিআরপিএফ জওয়ানদের কনভয়ের উপর আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছে জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মহম্মদ। শহিদ হয়েছেন অন্তত ৪২ জন জওয়ান। আস্তে আস্তে নিহত জঙ্গিদের পরিবারের সম্পর্কে জানতে পারেন মানেক ৷ পরিবারের হাহাকার দেখেই মত বদলান তিনি ৷ তখনই মনস্থির করেন, এমতাবস্থায় মেয়ের বিয়েতে আমোদ-আহ্লাদ মানায় না ৷ বিয়ে হবে ৷ তবে ছোট করে ৷ আর কাওয়াদাওয়ার জন্য রাখা সমস্ত টাকাটাই তুলে দেওয়া হবে জওয়ানদের পরিবার ও সিআরপিএফ-এর হাতে ৷

    First published: