corona virus btn
corona virus btn
Loading

উঠোনে ব্যাট করছেন মা, বল হাতে ছেলে, লকডাউনে অনূর্ধ্ব-২৩ ভারতীয় ক্রিকেটারের ভিডিও ভাইরাল

উঠোনে ব্যাট করছেন মা, বল হাতে ছেলে, লকডাউনে অনূর্ধ্ব-২৩ ভারতীয় ক্রিকেটারের ভিডিও ভাইরাল
নেটদুনিয়ায় ভাইরাল মা-ছেলের ক্রিকেট।

অত্যন্ত দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে ক্রিকেটার হয়েছেন অনন্ত। তবে সেই গল্প নয়, এখন অনন্তের মায়ের সঙ্গে ক্রিকেট খেলার ভিডিওই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

  • Share this:

#কোচবিহার: কথায় বলে ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়। সেই ইচ্ছে শক্তিকে ভর করে বাড়িতেই অনেক দিনের ইচ্ছা পূরণ করে ফেললেন ক্রিকেটার অনন্ত সাহা।

লকডাউনে খেলা বন্ধ। বাড়ি থেকে বেরোনো বন্ধ। ফিজিক্যাল ট্রেনিং বাড়ির ছাদে চলছিল। কিন্তু দীর্ঘ এক মাস ক্রিকেট খেলা হচ্ছিল না। বন্ধুরাও বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না। অনন্ত সাহার অগত্যা মধুসূদন হয়ে উঠলেন তাঁর মা জ্যোৎস্না সাহা। ব্যাট-বল হাতে ছেলের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে বাড়ির উঠোনে নেমে বললেন তিনি।

কোচবিহারের তুফানগঞ্জ মহাকুমার চিলাখায় বাড়ি অনন্ত সাহার। অনূর্ধ্ব ২৩ বাংলার হয়ে সাফল্য পাওয়ার পর চলতি মরশুমে রেলে চাকরি পেয়ে সেখানে যোগ দিয়েছেন ডানহাতি এই ফাস্ট বোলার। অনূর্ধ্ব ২৩ ভারতীয় দলের হয়েও ম্যাচ খেলেছেন। বাংলা প্রাক্তন ক্রিকেটার শিব শংকর পালের ছাত্র তিনি।

লকডাউনের শুরুতেই কলকাতা থেকে বাড়ি ফিরে যান অনন্ত। ২৬হজার টাকা গাড়ি ভাড়া দিয়ে কোচবিহারের ৪ বন্ধু মিলে কলকাতা থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এই কঠিন পরিস্থিতিতে মা'র সঙ্গে থাকবেন বলে এরকম সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন অনন্ত। এবার মা জ্যোৎস্না সাহা বাড়িতে থেকেই ছেলের ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন পূরণ করে ফেললেন লকডাউনের মধ্যে।

২০১৮-১৯ মরশুমে সিকে নাইডু ট্রফিতে ১০ ম্যাচে ৫২ উইকেট নিয়ে সবার নজরে উঠে আসেন অনন্ত। সিএবিতে অনূর্ধ্ব ২৩ বিভাগে বর্ষসেরা বোলার হন। এরপর গত বছর অগাস্টে ভারতীয় অনূর্ধ্ব ২৩ ক্রিকেট দলে সুযোগ পান কোচবিহারের এই ক্রিকেটার।

অত্যন্ত দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে ক্রিকেটার হয়েছেন অনন্ত। তবে সেই গল্প নয়, এখন অনন্তের মায়ের সঙ্গে ক্রিকেট খেলার ভিডিওই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ভিডিও দেখা যাচ্ছে অনন্ত বল করছেন। ব্যাট হাতে অনন্ত'র বোলিংয়ের সামনে সাবলীল ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে রয়েছেন মা জ্যোৎস্না দেবী। একবার মাকে ক্যাচ আউট করলেও অনন্ত কোনও উচ্ছ্বাস দেখাননি।

মায়ের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে পেরে উচ্ছ্বসিত অনন্ত। টেলিফোনে অনন্ত জানান, "লকডাউনে বাড়িতেই বসে রয়েছি। শরীর চর্চা করছি। বাড়িতে সব সময় মন টেকে না। একটু ইচ্ছে হল ক্রিকেট খেলার। মাকে বলাতে মা এক কথায় রাজি হয়ে গেল। মায়ের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতে পেরে অনেক আনন্দ পেয়েছি। মায়ের ব্যাট করা দেখে আমি তো অবাক।" ছেলের ইচ্ছা পূরণ করতে পেরে খুশি মা।

First published: May 2, 2020, 11:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर