মানবিকতার পাঠ দেওয়ার জন্য সারা বিশ্ব থেকে ডাক পাচ্ছে এই বালক

মানবিকতার পাঠ দেওয়ার জন্য সারা বিশ্ব থেকে ডাক পাচ্ছে এই বালক
photo source collected
  • Share this:

#মিজোরাম: শিশু বলেই হয়তো এমনটা সম্ভব। এই হৃদয় জানে না কাকে বলে হিংসা। কাকে বলে ভোট? কাকে বলে রাজনীতি? সে শুধু জানে একটাই ভাষা, আর সেই ভাষা ভালবাসার। গোটা বিশ্বকে মানবিকতার পাঠ দিল আইজলের এই পাহাড়ি শিশু। এখন তাঁকে ডাকা হচ্ছে বিভিন্ন শান্তি সভায়। সেদিন সাইকেল নিয়ে বেড়িয়েছিল সে। এক হাতে সাইকেলে চাপা পড়া মুরগির ছানা ও আরেক হাতে দশ টাকার নোট নিয়ে হাসপাতালে ছুটলো ছয় বছরের অবোধ শিশু, মুখে করুণ আকুতি, 'একে বাঁচিয়ে দাও'। মিজোরামের আইজল জেলার সাইরং এর বাসিন্দা ডেরেক সি লাল চানহিমা পাড়ার রাস্তায় সাইকেল চালানোর সময়ে তার সাইকেলের চাকার তলায় এসে পড়ে পড়শির মুরগি ছানাটি।

ছোট্ট শিশুটি, ঘাবড়ে গিয়ে মুরগির ছানাটি নিয়ে তক্ষুনি ছোটে বাড়িতে, বাবা মায়ের কাছে আর্জি জানায় ছানাটিকে বাঁচিয়ে তোলার। বাবা মা তাকে বোঝানোর চেষ্টা করে বিফল হন, যে ছানাটি মারা গেছে। জন্ম-মৃত্যুর বোধ না থাকা অবোধ শিশুটি তখন মুরগি ছানাটি কে নিয়ে ছোটে হাসপাতালে। সাথে নিয়ে যায় নিজের জমানো দশ টাকার একটি নোট। নার্সের টেবিলে ছানাটিকে রেখে অবুঝ আর্জি জানাতে থাকে, 'একে বাঁচিয়ে দাও'। নার্স তার কথা না রাখতে পারলেও, অন্য এক নার্স লক্ষ্য করেন এই নিষ্পাপ শিশুর ভেতরের মনুষ্যত্বকে। তিনি মোবাইল বন্দি করেন এই ছোট্ট সরল মানুষটিকে, ধন্যবাদ তাঁকে, তাঁর জন্যেই আমাদের পরিচয় ঘটে এই বিশালহৃদয় বালকটির সঙ্গে। ফেসবুকে এই কয়েক দিনে লক্ষাধিক শেয়ার হয় ডেরেক এর ভিডিওটির, বিভিন্ন বিখ্যাত মানুষ প্রশংসা করে ডেরেকের মানবিক হৃদয়ের। তারপর তাঁকে পুরস্কারও দেওয়া হয়। এখন তাঁকে বিশ্বের বিভিন্ন শান্তি সভায় ডাকা হচ্ছে মানবিকতার পাঠ দেওয়ার জন্য। তবে বালক জানে না কি বলবে সে সভায়। তাঁকে বিশ্ব শান্তি সভায় যোগদানের জন্য উৎসাহ দিচ্ছে বাবা মা। কিন্তু বালকের সরল প্রশ্ন,'সবাই কেন প্রাণী হত্যা করে? সবাইকে আমি নিজের কাছে এনে রাখব।' মানবিকতার জন্যই এই বালককে এবার দেখা যাবে বিভিন্ন শান্তি সভায়। সারা দেশের গর্ব এখন এই বালক।

First published: 06:09:18 PM Apr 10, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर