Home /News /national /
৯৩ বছর বয়েসে করোনাকে টেক্কা এই ভারতীয়র, কোন মন্ত্রে তিনি মৃত্যুঞ্জয়ী!

৯৩ বছর বয়েসে করোনাকে টেক্কা এই ভারতীয়র, কোন মন্ত্রে তিনি মৃত্যুঞ্জয়ী!

এই ঘটনাকে অনেকেই অলৌকিক বলছেন।

এই ঘটনাকে অনেকেই অলৌকিক বলছেন।

দিন কয়েক আগে থমাস ও তাঁর স্ত্রী দুজনেই করোনা আক্রান্ত হন। এই মারণ ভাইরাস ইতালি থেকে বহন করে এনেছিল তাঁর নাতিনাতনিরা। কিন্তু দেখা যায়, চিকিৎসকদের কল্পনার থেকেও দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছেন আব্রাহাম।

  • Share this:

    #তিরুঅনন্তপুরম: বিশ্ব জুড়ে প্রাণ নিচ্ছে করোনাভাইরাস। মৃত্যু ছাপিয়ে গিয়েছে ৪৭ হাজার। বয়স্কদের প্রাণ বাঁচাতে বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন চিকিৎসকরা। অথচ তিনি ৯৫ বছর বয়েসে করোনাকে হারিয়ে দিব্যি বাড়ি ফিরে এলেন। কেউ বলছেন অলৌকিক, কেউ বলছেন মনের জোর। কেরলের ৯৩ বছর বয়েসি কৃষক থমাস আব্রাহামের লড়াইয়ের গল্পটা আসলে অন্য।

    দিন কয়েক আগে থমাস ও তাঁর স্ত্রী দুজনেই করোনা আক্রান্ত হন। এই মারণ ভাইরাস ইতালি থেকে বহন করে এনেছিল তাঁর নাতিনাতনিরা। কিন্তু দেখা যায়, চিকিৎসকদের কল্পনার থেকেও দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছেন আব্রাহাম। সুস্থ হয়েছেন আব্রাহামের স্ত্রীও।

    আব্হামের নাতি রিজো মনসি রহস্যটা ভাঙলেন। তাঁর কথায়, "দাদু মাঠে চাষবাষ করেছে আজীবন। তাঁর শরীরের গড়ন রোজ জিম করা লোককেও হার মানাবে। সিক্স প্যাকও দেখা যায় এই ৯৩ বছর বয়েসে। সবচেয়ে বড় কথা তাঁর কোনও নেশা নেই।"রিজো ভালই জানেন, আব্রাহামের বয়েস করোনা মোকাবিলার পক্ষে অন্তরায়। কিন্তু আব্রাহাম যে মাঠঘাটের মানুষ। রিজোর কথায়, "অসুস্থ শরীরেও দাদু গাছের কাঠাল খেতে চাইছিল।"

    প্রাথমিক ভাবে ইতালির নামজাদা এই রেডিওলজিস্ট চেয়েছিলেন সপরিবারে অগস্ট মাসে কেরল আসতে। কিন্তু দাদুর জোরাজুরিতেই তাঁরা আগে চলে আসেন। আর সেখান থেকেই বিপত্তি।

    কেরলের মুখ্যমন্ত্রী,স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং সার্বিক স্বাস্থ্যকাঠামোর ভূয়সী প্রশংসা করেছেন রিজো।

    Published by:Arka Deb
    First published:

    Tags: Corona Virus

    পরবর্তী খবর